Trending

জুমা মোবারক স্ট্যাটাস ক্যাপশন মেসেজ ও আমল সমূহ

jumar diner amol

জুমা মোবারক স্ট্যাটাস এর পক্ষ্য থেকে আপনাদের সকলকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি । আশা করি সবাই অনেক ভাল

আছেন। আমিও আপনাদের দোয়ায় আল্লাহর রহমতে অনেক ভালো আছি। আপনাদের জন্য সবসময় কামনা করি আল্লাহ

আপনাদের সবাইকে ভালো রাখুন। আমরা জানি শুক্রবার হচ্ছে মুসলমানদের পবিত্র একটি দিন। তাই এই দিনকে বলা হয়

গরিবের হজের দিন। শুক্রবার ঘিরে আমাদের থাকে বেশ আয়োজন এই দিনে সাপ্তাহিক জুম্মার নামাজ পড়া হয়। আর তাই

এদিনকে জুম্মা মোবারক বলা হয়। আমাদের সবার সাধারণত এই দিনটি সরকারি ছুটি থাকে । তাই সবাই ছুটি উপভোগ করে

থাকে । আর তাই অনেক সময় আমরা বিভিন্ন স্ট্যাটাস সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দিয়ে বন্ধুবান্ধবের সাথে উইশ করে

থাকি। এছাড়াও আমাদের বেশকিছু আমল থাকে যে আমলগুলো আমরা না জানার কারনে করতে পারি না। তাই আসুন

জুমা মোবারক স্ট্যাটাস এর মাধ্যমে আজ জেনে যাব শুক্র বারে যেসব আমল আছে সেগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত। যাতে

আমাদের জীবনে আমরা প্রয়োগ করতে পারি এবং স্ট্যাটাসগুলো বন্ধ বান্ধবের সাথে শেয়ার করতে পারি।

জুম্মা মোবারক স্ট্যাটাস

জুম্মার দিনে প্রচুর ব্যস্ত থাকায় অনেক সময় বন্ধুদের স্ট্যাটাস দেওয়া হয়ে ওঠে না। বন্ধুদের সাথে সৌজন্যতা বিনিময় করাও

কঠিন হয়ে পরে। কারণ এই দিন বন্ধ থাকার কারণে অনেক বন্ধুই আমাদেরকে মিস করতে থাকে। আর তাই যদি এরকম

হত সুন্দর সুন্দর স্ট্যাটাস যেগুলো বন্ধুদের সাথে শেয়ার করা যায়, তাহলে কেমন হতো? তাদের কথা চিন্তা করে এখানে

আমরা সাজিয়েছি অনেক সুন্দর শুক্রবার এর কিছু স্ট্যাটাস। যেগুলো আপনি শেয়ার করতে পারবেন আপনার বন্ধুদের

সাথে।

হে যুবক পথ হারিয়েছো নামাজে এসো
পথের দেখা পেয়ে যাবে ইনশাল্লাহ।

 

তুমার গোনহ্ যদি হয় পাহার সমান।
তাহলে আল্লাহর ক্ষমা হবে আকাশ সমান।

 

হতাশ হয়োনা আল্লাহর উপর ভরসা রেখো
কারণ তিনি পরম করুনাময় ও দয়াশীল।

 

মানুষের কাছে কিছু চাইলে
মানুষ বিরক্ত মনে করে।
কিন্তু মহান আল্লাহ পাকের
কাছে চাইলে সে খুসি হয়।

 

জুমার দিনের বিশেষ সময়
আল্লাহ দোয়া কবুল করে থাকে।

জুম্মা মোবারক মেসেজ

মেসেজ হচ্ছে সবার সাথে ভাব বিনিময়ের অন্যতম একটি মাধ্যম। মেসেজ দিয়ে যে কারো সাথে তার মনের ইচ্ছা বা মনের

আনন্দ কে শেয়ার করা যায়। তাই শুক্রবার এর আনন্দকে এবং শুক্রবার এর কার্যক্রমকে আমরা মেসেজের মাধ্যমে শেয়ার

করতে পারি বন্ধুদের সাথে । আর এজন্যই এখানে সুন্দর সুন্দর বাছাই করা কিছু মেসেজ দেয়া হলো যেগুলো আপনি শেয়ার

করতে পারবেন।

  • প্রিয় বন্ধু আজ আমি মহা খুসি কারণ আমি আজ জুমার নামাজ পড়ার সুযোগ পেয়েছি।
  • তোমাদের সবাইকে নামাজ পড়ার দাওয়াত রইল। কারণ আজ শুক্রবার।
  • পৃথিবীতে তুমি এমন কাজ করো তুমার যেন আল্লাহর কাছে জান্নাত চাইতে না হয়। জান্নাত যেন তুমাকে চেয়ে নেয়।
  • মুসলমানদের এমন এক সময় আসবে যখন হাতে জ্বলন্ত কয়লা রাখা যতটুকু কঠিন হবে তার চেয়ে কঠিন হবে ঈমান ধরে রাখা।
  • যখন শুক্রবারে মসজিদে আজান হবে তখন সকল প্রকার কেনাবেচা বন্ধ করো এবং আল্লাহকে স্মরণ করার জন্য ত্বরা করে কারণ এটাই তোমাদের জন্য উত্তম যদি তুমরা বুঝ।

জুমা মোবারক স্ট্যাটাস এ জুম্মা মোবারক ক্যাপশন

ছোট্ট কথা দিয়েও অনেক সময় নিজের মনের ভাব প্রকাশ করা যায়। তাই জুম্মা মোবারক দিনে আমরা ছোট ছোট ক্যাপশন

ব্যবহার করে এই দিনটাকে আরো সাফল্যমন্ডিত করতে পারি। সরকারি বন্ধের  এই দিনটাকে বন্ধুবান্ধবের সাথে আরো বেশি

শেয়ার করতে পারি । আর এই জন্য এখানে অনেক সুন্দর কিছু ক্যাপশন দেয়া হলো যেগুলো আপনার পড়লে ভালো লাগবে

এবং শেয়ার করুন সবার সাথে।

  1. আজকে জুমার দিন । চল সবাই নামাজ পড়তে যাই।
  2. মুসলমানদের  ঈদের দিন হিসেবে পরিচিত শুক্রবার।
  3. আমি মুসলমান এটা আমার গর্ব । আর শুক্রবার আমার গোনাহ মাফের সুযোগ ।
  4. শুক্রবার হচ্ছে ধনী আর গরীবের মিলন মেলা আর মসজিদ হচ্ছে তার মিলন স্থল।
  5. নিরাশ হয়োনা। আল্লাহর দরবার তুমার জন্য বন্ধ হয়ে যায়নি। আজ শুক্রবার আল্লাহর কাছে দোয়া কর । আল্লাহ তোমাকে ক্ষমা করবেন।

জুম্মা মোবারক হাদিস

যেহেতু এই দিনটি মুসলিম দের কাছে অনেক বেশি পবিত্র তাই এই দিনকে ঘিরে আছে বিভিন্ন ধরনের হাদিস মোবারক।

তাছাড়াও বিভিন্ন সময় আমাদের  প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মদ সাল্লাহ সালাম বিভিন্ন হাদিস ব্যাখ্যা করে গেছেন। এই দিনটার

ফজিলত সম্পর্কে আর তাই বিভিন্ন হাদীসে উল্লেখ করা হয়েছে আর সেই সকল হাদীস থেকে বাছাই করে এখানে দু একটি

হাদিস প্রদান করা হলো।

  • আমাদের সবার প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) তার এক হাদিসে বর্ণনা করেন মুমিনের জন্য জুমার দিন হলো সাপ্তাহিক ঈদের দিন ( ইবনে মাজাহ হাদিস নং ১০৯৮ ।
  • অন্য এক হাদিসে প্রিয় নবী ( সাঃ ) ইরশাদ করেন , যে দিনগুলোতে সূর্য উদিত হয়, ওই দিনগুলোর মধ্যে জুমার দিন সর্বোত্তম। ওই দিন হজরত আদমকে (আ.) সৃষ্টি করা হয়েছে। ওই দিন তাকে জান্নাতে প্রবেশ করানো হয় এবং ওই দিনই তাকে জান্নাত থেকে বের করে দেওয়া হয়। আর ওই দিনই কিয়ামত অনুষ্ঠিত হবে। (মুসলিম শরিফ , হাদিস নম্বর ৮৫৪)

জুমার দিনের ১১ টি আমল

যেহেতু এই দিনটি ফজিলত পূর্ণ তাই এই দিনে থাকে বেশি কিছু স্পেশাল আমল যা মুসলমানদের জীবনে বোনাসের মত।

তাই যদি আপনি জানতে পারেন কোন আমল গুলো করলে আরোবেশি লাভবান হতে পারবো সেই বিষয়ে পূর্ণ একটি ধারণা

এখানে দেয়া হলো । এই অংশটুকু পড়লে আপনি জানতে পারবেন এই দিনের ১১ টি আমল সম্পর্কে।

  1. ঘুম থেকে আগে আগে উঠা।
  2. জুমার দিন বেশি বেশি দুরুদ পাঠ করা।
  3. জুমার নামাজ পড়ার জন্য আগে আগে মসজিদে যাওয়া।
  4. বেশি বেশি দোয়া করা কারণ এই বিশেষ দিনে দোয়া বেশি বেশি কবুল হয়।
  5. কোন ভাবেই নামাজের কাতার ভেঙ্গে সামনে না যাওয়া।
  6. সূরা কাহাফ তিলাওয়াত করা।
  7.  উত্তম রুপে গোসল করা।
  8. আতর বা হালাল সুগন্ধি ব্যবহার করা।
  9. সসজিদে পায়ে হেটে যাওয়া।
  10. চুপ থেকে খুতবা শোনা।
  11. তাহিয়াতুল মসজিদ আদায় করা।

জুমার দিনের শ্রেষ্ঠ আমল / জুমার দিনের ফজিলত ও আমল

জুমার দিনে একদিকে যেমন কিছু আমল রয়েছে অন্যাদিকে এই দিনটি অনেক ফজিলত পূর্ণ । আর তাই  জুমার দিনে যে

আমল গুলো শ্রেষ্ঠ আমল হিসেবে বিবেচিত হয় বা  আছে সেই আমল সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানি না । যার  ফলে দেখা

যায় আমরা তা পালন করতে পারিনা ফলে অনেক নেকির কাজ থেকে আমরা বঞ্চিত হয়ে থাকি । তাই এখানে জুমার দিনের

শ্রেষ্ঠ আমল সম্পর্কে বিস্তারিত বর্ণনা করা হল। যেন আমরা সহজেই এই দিনে আমল গুলো পরিপূর্ণ ভাবে সবাই পালন

করতে পারে।

জুমা মোবারক স্ট্যাটাস এর জুমার দিনের বিশেষ আমল

আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এরশাদ করেন তোমার জুমার দিনে আমার ওপর বেশি বেশি দরুদ পাঠ করো কেননা তোমাদের পাঠকৃত দরুদ আমার সামনে পেশ করা হয়( আবু দাউদ শরীফ হাদিস নং ১০৪৭)

তাছাড়াও তিরমিজি শরিপের হাদিস অনুযায়ী আমরা জানতে পারি যে ব্যাক্তি দরুদ পাঠ করে আল্লাহ তার ওপর ১০টি রহমত নাযিল করবেন । সুতরাং আমরা যদি জুমার দিন অন্যান্য আমলের সাথে বেশি বেশি দরুদ পাঠ করি তাহলে অনেক বেশি ফযিলত হবে। তাই এই দিনে আমাদের বেশি বেশি দরুদ পাঠ করতে হবে।

প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) বলেন জুমার দিন দোয়া কবুল হওয়ার একটি সময় আছে কোন মুসলিম যদি সেই সময়টা পায় আর তখন যদি সে নামাজে থাকে তাহলে তার যেকোনো কল্যান কামনা আল্লাহ পূরন করেন। বৃখারি হাদিস নম্বর- ৬৪০০

জুমা মোবারক স্ট্যাটাস এর শেষ কথা

জুমা মোবারক স্ট্যাটাস এর শেষ কথায় বলা যায় উপরোক্ত লেখাটি দারুন লেগেছে তাইনা? আমার বিশ্বাস। তাই যদি

আপনার ভালো লেগে থাকে চটপট শেয়ার করুন আপনার বন্ধুদের সাথে। তারাও যেন আপনার মত এই লেখাটি পড়ে

আনন্দ উপভোগ করতে পারে। একই সাথে জুমার দিনে তারাও তাদের দায়িত্ব পালন করতে পারে। কারণ আমরা সব সময়

ভালো কাজকে সবার সাথে শেয়ার করবো। যাতে করে সবাই ভাল কাজ করতে পারি । আর এই লেখা সম্পর্কে আপনার যদি

বিশেষ কোনো মন্তব্য থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে আমাদেরকে জানাবেন। এছাড়াও আরো কোন বিষয়ে যদি

আপনার জানা ইচ্ছে থাকে আমাদেরকে লিখতে পারেন । আমরা পরবর্তী লেখায় তা প্রকাশ করব। জুমা মোবারক

স্ট্যাটাস প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত কষ্ট করে পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

আরো যে বিষয় গুলো পড়তে পারেন তাহলো :

. জীবন নিয়ে সেরা ২৫০ টি কথা .উক্তি

২. মা নিয়ে কিছু কথা ছন্দ, উক্তি ও মেসেজ

. কিছু কথার পিঠে কথা গান

. বাপের বেটা কবিতা 

৫.নীরবতা নিয়ে উক্তি, কবিতা

6.Qatar World Cup-2022

Leave a Reply

Your email address will not be published.