Tips & Tricks
Trending

পাঁচটি লাভজনক ব্যবসার ধারণা

পাঁচটি লাভজনক ব্যবসার ধারণা: চাকরির বাজার বা ক্ষেত্র দিন দিন যেভাবে ছোট হয়ে আসছে, এবং দেশের জনসংখ্যা যে হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে ভাল একটা চাকরি পাওয়া আর সোনার হরিণ পাওয়া একই কখা।  সরকারি চাকরি হলে তো কথাই নেই। এ ছাড়াও দেশে দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে শিক্ষিতের হার । আর তাই বেকারের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে দিনি দিন।

আর তাই বর্তমান প্রজন্ম দিনদিন আগ্রহ দেখাচ্ছে বিভিন্ন ব্যবসার দিকে। ব্যবসা করে তারা চায়  নিজেই কিভাবে স্বাবলম্বী হওয়া যায়। প্রতিনিয়ত তারা চেষ্টা করে যাচ্ছে নতুন ব্যবসা শুরু করার।  আর তাদের সেই চেষ্টাকে ফলপ্রসূ করার জন্য আমার এই লেখা। এখানে আপনি ব্যবসা করার সম্পর্কে বিভিন্ন ধারণা পাবেন।

কোন ব্যবসা গুলো করলে আপনি সহজেই আয় করতে পারবেন। আপনার লস হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম থাকবে। তো জেনে নেয়া যাক কোন পাঁচটি ব্যবসা আপনি সহজে আরম্ভ করতে পারবেন খুবই ক্ষুদ্র পরিসরে। সেই ব্যবসায়ীকে আস্তে আস্তে অনেক বড় পরিসরে নিয়ে যেতে পারবেন।

লাভজনক যে পাঁচটি ব্যবসা

আমরা যারা ব্যবসা করব আমাদের জেনে রাখা ভালযে সব ব্যবসার মধ্যে ঝুঁকি থাকবে। কিন্তু আপনার খুঁজে বের করতে হবে কোন ব্যবসার মধ্যে সবচেয়ে কম ঝুকি আছে, এবং আপনার এলাকায় সেই ব্যবসাটা খুব সহজেই করতে পারবেন। তো আমি অনেক আলাপ আলোচনা করার পর দেখলাম, নিচের যে ব্যবসা পাঁচটি আছে।এই ব্যবসা গুলো খুবই লাভজনক, এবং এখানে ক্ষতি হবার সম্ভাবনা খুবই কম।

আপনি ইচ্ছে করলে আপনার এলাকার চাহিদামত যেকোনো একটা ব্যবসা পছন্দ করে নিয়ে শুরু করে দিতে পারেন । সেক্ষেত্রে আপনি লাভবান হবেন। শুধু একটু চোখ কান খোলা রেখে ব্যবসাটা শুরু করবেন, এবং ব্যবসা করার আগে কিছুদিন এই ব্যবসা সম্পর্কে ধারণা নেওয়ার চেষ্টা করবেন। তাহলে দেখবেন আপনি লাভবান হবেন ইনশাল্লাহ।সেই পাঁচটি ব্যবসা নিচে বিস্তারিত বর্ণনা করা হলো।

স্টক ব্যবসা

গ্রামে বিভিন্ন মৌসুমভেদে বিভিন্ন ফসল মানুষ ঘরে তোলে। আর যখন মানুষ ফসল ঘরে তোলে তখন সেই ফসলের দাম কম থাকে। আপনি যদি ইচ্ছা করেন বিভিন্ন মৌসুমের বিভিন্ন ফসলের কিনে ঘরে স্টক করবেন। তাহলে দেখবেন দুই-তিন মাস ষ্টক করার পরে আপনি ভালো  লাভে সেগুলো বিক্রি করে আপনি লাভবান  হতে পারছেন।

এখানে আমরা আপনাদের কোন ফসলের নাম উল্লেখ করলাম না, কারণ আপনি দেখবেন আপনার এলাকায় কোন ফসলটি অধিক জন্মে, এবং আপনার এলাকার চাহিদামত আপনি ষ্টক ব্যবসা শুরু করে দিতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আপনাকে একটু লক্ষ্য রাখতে হবে যেন আপনি সঠিক উপায়ে মালগুলো গুদামজাত করেন বা রাখেণ।

মাল রাখার পর যেন কোনভাবেই সেই মালামাল নষ্ট না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আর আপনারা যে মাল ক্রয় করবেন, সেই মালের বাজারদর সম্পর্কে আপনার ভালো ধারণা থাকতে হবে। তাহলে দেখবেন আপনি এই ব্যবসা করে খুব সহজেই ধনী হতে পারবেন।

ফার্মিং ব্যবসা

বর্তমানে অনেক বেকার শিক্ষিত যুবক, জড়িত হচ্ছেন বিভিন্ন ফার্মিং পেশায়। আপনি আপনার সুবিধামতো যেকোনো ফার্মিং পেশায় নিজেকে জড়াতে পারেন। সেটা হতে পারে গরু পালন, সেটা হতে পারে ছাগল পালন, সেটা হতে পারে মুরগি পালন, সেটা হতে পারে শাকসবজি চাষ আপনি আপনার সুবিধা, এবং আপনার এলাকার চাহিদাকে বিবেচনা করে আপনি শুরু করে দিতে পারেন ফার্মিং ব্যবসাটা ।

এই ব্যবসাটা বর্তমানে খুবই লাভজনক।কৃষিপণ্যের বাজারে চাহিদা সবসময়ই থাকে। এর চাহিদা প্রচুর যেহেতু এগুলো আমাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য । তাই বিক্রি করার জন্য আপনাদের চিন্তা করতে হয় না। আপনি যখন এই ব্যবসাটি শুরু করবেন তার আগে আপনাকে একটু সতর্ক করব। আপনি অবশ্যই প্রশিক্ষণ নিয়ে শুরু করবেন।

যদি পারেন প্রশিক্ষণের পাশাপাশি কিছুদিন হাতে-কলমে শিক্ষা নিবেন। তাহলে আরো ভাল হবে। আপনার লস হওয়ার সম্ভাবনা অনেক অনেক কমে যাবে । তাই আপনি শুরু করে দিতে পারেন আপনার এলাকার উপর ভিত্তি করে ফার্মিং ব্যবসাটি।

অনলাইন বিজনেস

অনলাইনের যুগে, আপনি যদি আগেকার মত ব্যবসা শুরু করে পড়ে থাকেন। তাহলে আপনার ব্যবসা বড় হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম। তাই বর্তমানে অনেকেই অনলাইনে ব্যবসা শুরু করে দিয়েছে । বিশেষ করে যারা শিক্ষিত বেকার যুবক তারা যুক্ত হচ্ছে এই অনলাইনের ব্যবসায়। কারণ ঘরে বসেই খুব সহজেই করা যায় এই ব্যবসাটি।

তাছাড়াও এ ব্যবসা করার জন্য আপনার কোন দোকান বা গুদাম ঘর ভাড়া  নিতে হয় না। আপনি ইচ্ছে করলেই অন্যের পণ্য বিক্রি করে দিয়েও আপনি টাকা ইনকাম করতে পারেন। আর তাই অনলাইন ব্যবসাটি হতে পারে আপনার ব্যবসার । হতে পারে আপনার একমাত্র ব্যবসা । যে ব্যবসা করে আপনি খুব সহজেই ঘরে বসে আয় করতে পারেন লক্ষ লক্ষ টাকা।

হস্তশিল্প ব্যবসা

হস্তশিল্প এমন একটি ব্যবসা, যে ব্যবসায়টি আপনি সহজেই ঘরের মধ্যেই পরিচালনা করতে পারেন। তাছাড়া গ্রামের অনেক লোকই, অনেক ধরনের কাজ জানে। যে কাজগুলো শহরের মানুষ করতে পারে না। তাই আপনি ইচ্ছে করলে আপনার জানা হাতের কাজ দিয়ে শুরু করে দিতে পারেন ব্যবসাটি। তো আমি এখানে আপনাদের কোন নির্দিষ্ট কাজের কথা বলব না।

আমি জাস্ট মূল বিষয়টা বলতেছি, আপনি আপনার এলাকার চাহিদা, এবং আপনার জানা কাজের উপর ভিত্তি করে শুরু করে দিতে পারেন হস্তশিল্পের এই ব্যবসাটি। এটি হতে পারে আপনার জীবনের ভাগ্যর চাকা ঘুরিয়ে দেওয়ার এক হাতিয়ার বা মাধ্যম। তো আর দেরি না করে, আপনার সুবিধামতো হস্তশিল্পের ব্যবসাটি শুরু করে দিতে পারেন খুব ছোট পরিসরে থেকে।

ফোন ফ্যাক্স ও ফ্লেক্সিলোড ব্যবসা

বর্তমানে মোবাইল নাই এমন বাড়ি পাওয়া যাবেনা। বাড়িতো দূরের কথা প্রায় প্রতিটা মানুষের কাছেই বর্তমানে মোবাইল ফোন আছে। আপনার এলাকায় অনেক মোবাইল ফোন আছে, কিন্তু আপনি খোঁজ করে দেখেন আপনার এলাকায় ফ্লেক্সিলোড বিকাশ সহ বিভিন্ন ধরনের পেমেন্ট করা যায় এমন দোকান নাই বললেই চলে ।

আমি খোঁজ নিয়ে দেখেছি অনেক এলাকায় এরকম দোকান নাই। শুধু বাজারগুলোতে এরকম দোকান পাওয়া যায়। আপনি যদি আপনার এলাকায় এরকম সকল লোড করা যায় এবং সাথে টাকা পাঠানো যায় এর রকম একটি দোকান করেন । আমি নিশ্চিত  আপনি এখান থেকেখান থেকে লাভবান হতে পারবেন।

কারণ এখানে আপনার কোন লস হবার সম্ভাবনা নাই। কোম্পানি আপনাকে কমিশন হারে টাকা দিবে। এতে করে আপনার কোন ধরনের লস হবে না। আপনি ইচ্ছে করলে এই ব্যবসাটি শুরু করে দিতে পারেন আপনার এলাকায়।

নতুন ব্যবসার আইডিয়া

আমরা সবসময় চেষ্টা করি নতুন কিছু করার । আর তাই আপনাদের জন্য আমরা জানিয়ে দিব কিছু নতুন আনকমন ব্যবসার ধারনা। তবেই আপনি সেই ব্যবসা থেকে হতে পারবেন লাভবান। তাছাড়া আমরা বর্তমানে  যে ব্যবসার নাম বলব সেই ব্যবসাগুলো বর্তমানে খুবই নতুন বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে। এটা নতুন ভাবে বাংলাদেশে শুরু হয়েছে।

আপনি যদি দেখেন আপনার এলাকায় যেকোনো একটি ব্যবসা ভালো চলবে, তবে এখান থেকে আপনি পছন্দ করে নিয়ে আপনার এলাকায় শুরু করে দিতে পারেন । যেহেতু এই সকল ব্যবসার বাজার বাংলাদেশে  নতুন  প্রচলিত তাই আপনি যদি এই ব্যবসা গুলো করলে  লাভবান হতে পারবেন খুব সহজেই।

  • বিদেশ থেকে পণ্য আমদানীর ব্যবসা
  • অনলাইন কমিশন ব্যবসা
  • প্যাকেজিং ব্যবসা
  • অর্গানিক দোকান
  • হোম ডেলিভারি ব্যবসা

বিদেশি ব্যবসার আইডিয়া

আপনি ইচ্ছে করলে বিদেশ থেকে পণ্য আমদানি করে ব্যবসা করতে পারেন। বর্তমান যুগে বিভিন্ন দেশ থেকে পণ্য আমদানি করা খুবই সহজ আপনি বেশ কিছু নিয়ম মেনে ,এবং কাগজপত্র কমপ্লিট করে খুব সহজেই বিদেশ থেকে পণ্য আমদানি করে ব্যবসা করতে পারেন। বিশেষ করে বর্তমানে চায়না থেকে পণ্য আমদানির ব্যাবসা খুবই জনপ্রিয়।

কারণ এই ব্যবসা সবাই করতে পারে না, বিধায় এই ব্যবসায় লাভের পরিমাণ থাকে অনেক বেশি। আপনি যদি এই ব্যবসা করতে পারেন, তাহলে আপনি মিলেনিয়ার হতে পারবেন খুব সহজেই।

মেয়েদের ব্যবসার আইডিয়া

মেয়েরাও বর্তমানে পিছিয়ে নেই। তারা যুক্ত হচ্ছেন বিভিন্ন চাকরির পাশা পাশি বিভিন্ন ব্যবসা ক্ষেত্রে। তারা নিজেরা চেষ্টা

করে যাচ্ছেন কিভাবে স্বাবলম্বী হওয়া যায়। আর তার জন্য দিন দিন যুক্ত হচ্ছে বিভিন্ন ব্যবসার সাথে। তারা বেছে নিচ্ছে

বিভিন্ন ব্যবসা কে। আর মেয়েদের জন্য যেসকল ব্যবসা লাভজনক এবং সহজেই করতে পারবে এটা তাদের করার মত

উপযোগী, সেই সকল  বিষয় সমূহ উল্লেখ করলাম । যে ব্যবসা গুলো মেয়েরা করে খুব সহজেই  লাভবান হতে হবে পারবেন,

এবং যে ব্যবসা গুলো  তাদের জন্য উপযোগী।

  •  বিউটি পার্লার।
  • টেইলর ব্যবসা।
  • অনলাইন ব্যবসা ।
  • ফ্রিল্যান্সিং।
  • কোচিং ব্যবসা।
  • কসমেটিকসের দোকান।

বিউটি পার্লার এর ব্যবসা

 

 পাঁচটি লাভজনক ব্যবসার ধারণা
পাঁচটি লাভজনক ব্যবসার ধারণা

বিউটি পার্লারের কাজ যেহেতু মেয়েদের নিয়ে । তাই মেয়েরা এ ব্যবসা করতে পারেন এবং অলরেডি তারা করে আসছেন।

তাই আপনি ইচ্ছে করলে অল্প কিছুদিন প্রশিক্ষণ নিয়ে শুরু করে দিতে পারেন এই ব্যবসাটি।

টেইলর ব্যবসা

বিশেষ করে মেয়েদের জামা কাপড় বানানোর জন্য আমাদের যেতে হয় ছেলে দর্জির কাছে। কিন্তু অনেক সময় মেয়েরা

সেখানে যেতে লজ্জা বোধ করে বা যেতে চায় না। তাই যদি মেয়ে দর্জি  থাকে  তার কাছে তারা যেতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে ।

আর তাই আপনি বেছে নিতে পারেন এই ব্যবসাটি । আপনি আপনার নিকটস্থ কোন জায়গা থেকে কাজ শিখে সহজেই

বাড়িতে বসেই করতে পারেন এই ধরনের ব্যবসা টি।

অনলাইন ব্যবসা

ঘরে বসেই করা যায় সারা দুনিয়ার কাজ। ঘরে বসে কামাই করা যায় ডলারে। আপনি যদি মেয়ে হয়ে থাকেন? তবে আপনার

জন্য এই পেশাটি। দারুন একটি পেশা। আপনি কিছুদিন কাজ শিখে, ঘরে বসেই আয় করতে পারেন ফ্রিল্যান্সিং ব্যবসাটি

করে। যেটা আপনার জন্য উপযুক্ত । একদিকে যেমন টাকা ইনকাম হবে।

অন্যদিকে বাঁচবে আপনার মান-সম্মান। যেতে হবে না আপনাকে ঘরের বাহিরে। আপনার পরিবারকে করতে হবে না বাড়তি

চিন্তা আপনার জন্য। তাহলে আর দেরী নয় শুরু করে দিন এই ব্যবসাটি।

কোচিং ব্যবসা

বর্তমানে অনেক গার্ডিয়ান আছে যারা ছেলে প্রাইভেট টিচারের কাছে মেয়েদেরকে পড়তে দিতে চায় না। কারণ বিভিন্ন

দুর্ঘটনার কারণে তারা এখন ছেলেদের কাছে প্রাইভেট পড়ানো কে ভয় পায়। আর তাই যদি আপনি মেয়ে হয়ে থাকেন

তাহলে? আপনি একটি কোচিং সেন্টার করে সেখান থেকে মোটা অংকের টাকা আয় করতে পারেন। যেটা হতে পারে

আপনার একটি লাভজনক ব্যবসা।

কসমেটিকসের দোকান

এখনো বেশিরভাগ দোকানে দেখা যায় কসমেটিক্স বিক্রি করতেছে ছেলে দোকানদার গুলো। যার কারণে মেয়েরা সেই

দোকানগুলো যেতে চায় না । আর তাই আপনি যদি মেয়ে হয়ে থাকলে একটি কসমেটিকের দোকান করেন দেখবেন

আপনি অনেক কাস্টোমার বেশি পেয়েছেন । কারণ অনেকগুলো বিষয় থাকে যেগুলো ছেলেদেরকে বলা যায়না।

মেয়েদের কাছ থেকে সেই জীনিস পত্র গুলো কেনা যায় খুব সহজে, এবং স্বাচ্ছন্দ্যবোধ নিয়ে। আর তাই আপনি শুরু করে

দিতে পারেন কসমেটিকস এর ব্যবসা।

(ধনী হতে চান? জানতে চান ধনী হওয়ার সকল কৌশলসমূহ। তাহলে আর দেরি নয় ক্লিক করুন এখানে  আর দেখে নিনি

ধনী হওয়ার মন্ত্র)

বাংলাদেশের ব্যবসার আইডিয়া বা গ্রামের ব্যবসার আইডিয়া

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে অনেক ধরনের ব্যবসা আপনি করতে পারবেন। তবে আমি সকল ব্যবসার কথা আলোচনা করবো

না বা বলবো না। আমি শুধু বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে, যে ব্যবসা করলে আপনি লাভবান হতে পারবেন সেই সকল ব্যবসার

কথা এখানে সংক্ষিপ্তভাবে ধারণা দিব। কারন তানাহলে লেখা অনেক বড় হয়ে যাবে।

আমি শুধু আপনাদের কয়েকটি লাভজনক ব্যবসার নাম বলব। যা বাংলাদেশের  মানুষ জনের জন্য খুবই লাভজনক ।

  • পুরাতন জিনিস ক্রয় বিক্রয়।
  • গ্রামে গরু ক্রয় বিক্রয়।
  • কাঁচামালের ব্যবসা।
  • হকারি ব্যবসা ।
  • ফলের দোকান।
  • মিষ্টির দোকান ।
  • মাছ বিক্রির ব্যবসা।
  • পোশাক বিক্রি ব্যবসা ।
  • গাড়ি বিক্রি বা ভাড়ার ব্যবসা।

 উপরোক্ত ব্যবসা গুলোর মধ্যে থেকে যে কোন ব্যবসা আপনি করতে পারেন। যেটা আপনার জন্য লাভজনক হবে।

বাংলাদেশের সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসা

 পাঁচটি লাভজনক ব্যবসার ধারণা
পাঁচটি লাভজনক ব্যবসার ধারণা

বাংলাদেশর অনেক ব্যবসাই লাভজনক। তো আমরা সেই লাভজনক ব্যবসার মধ্য থেকে বাছাই করে দেখেছি সব চেয়ে

লাভজনক ব্যবসা কোনটি যেখান থেকে পাওয়া যাবে সবচেয়ে বেশি লাভ। আমি অনেক যাচাই-বাছাই করে দেখলাম

বাংলাদেশে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসার মধ্যে যেটি সর্বাধিক লাভজনক ব্যবসা সেটি, হল আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহ।

অর্থাৎ বিভিন্ন এনজিওর ব্যবসা। আপনি যদি বাংলাদেশ কোনভাবে লাইসেন্স নিয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বা এনজিও ব্যবসা

করতে পারেন তাহলে আপনি খুব সহজেই লাভবান হতে পারবেন। এখানে ক্ষতি হবার সম্ভাবনা খুবই কম। বাংলাদেশ

মানুষজন ঋণ নেওয়া এবং দেওয়াতে অভ্যস্থ । এজন্য আপনি খুব সহজেই এই ব্যবসাটি করতে পারবেন।

(ধনী হতে চান? জানতে চান ধনী হওয়ার সকল কৌশলসমূহ? তাহলে আর দেরি নয় ক্লিক করুন এখানে দেখে আসুন ধনী

হওয়ার মূল মন্ত্র গুলো।)

টাকা ছাড়া ব্যবসার ধারণা

অনেকের প্রশ্ন টাকা ছাড়া আবার ব্যবসা হয় নাকি? কিন্তু অনেকেই বলেন বুদ্ধি থাকলে টাকা ছাড়া ব্যবসা করা যায়। হ্যাঁ

আমি আপনাদের কিছু ব্যবসার ধারনা দিব, যে ব্যবসা আপনি ইচ্ছে করলে টাকা ছাড়াই করতে পারেন। তার মধ্যে

উল্লেখযোগ্য ব্যবসা হলো – অনলাইনে কমিশন ব্যবসা।

যে ব্যবসাটি আপনি ঘরে বসেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইনে পণ্য কেনা-বেচা করে দিয়ে, সেখান থেকে কমিশন নিয়ে

ব্যবসা করতে পারেন। এছাড়াও গ্রামে হাটে বাজারে দালালি ব্যবসা বলে, যেমন আপনি কোন কিছু কিনাকাটা করে দিয়ে

মধ্যস্থতাকারী হিসেবে সেখান থেকে একটি কমিশন নিতে পারেন।

এছাড়াও বর্তমানে বাংলাদেশে আদম ব্যবসা বলে বিদেশে লোক পাঠিয়ে সেখান থেকে কমিশন নিয়ে আপনি ব্যবসা করতে

পারেন। এই ব্যবসা গুলো অনায়াশেই আপনি টাকা ছাড়া করতে পারবেন। এছাড়াও আরও অনেক ব্যবসা আছে, যেগুলো

আমি উল্লেখ করলাম না। যেগুলো শুধু প্রচলিত সেগুলো এখানে তুলে ধরা হলো।

(জীবনে সুখী হওয়ার মূল মন্ত্র জানতে চান? তাহলে জেনে নিন আমাদের এই পেজ থেকে সুখী হওয়া সেই মূলমন্ত্র গুলো)

শেষকথা:

উপরোক্ত আপনাকে যেভাবে ব্যবসা সম্পর্কে ধারণা দেয়া হয়েছে, সেই ধারনা মতে ব্যবসা করলে আপনি অবশ্যই লাভবান

হবেন। আর এই ব্যবসাগুলো যদি আপনি ভালভাবে বুঝে করেন, আপনি লাভবান হতে পারবেন। অবশ্যই মনে রাখবেন

ব্যবসা করার ক্ষেত্রে ধৈর্য ধারণ করতে হবে। কারণ ধৈর্যধারণ ছাড়া আপনি কোন কিছু থেকে লাভবান হতে পারবেন না।

আপনি  যে ব্যবসা করবেন সেই ব্যবসা সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা থাকতে হবে । বিশেষ করে সেই ব্যবসার খুঁটিনাটি বিষয়গুলো

আপনার জানতে হবে। যদি সে ক্ষেত্রে না জানেন সে ক্ষেত্রে আপনি লস হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। এছাড়াও আপনি যদি

মনে করেন আমাদের কাছে বিভিন্ন সময়ে প্রশ্ন করে বিভিন্ন বিষয়ে জেনে নেবেন জেনে নিতে পারেন।

কমেন্ট সেকশনে লেখে আমাদের কাছ থেকে। আমরা  সবসময় চেষ্টা করব আপনার প্রশ্নের উত্তর দিতে। ধন্যবাদ কষ্ট করে

পড়ার জন্য।

(আপনি যদি কৃষি বিষয়ক বিভিন্ন আপডেট ভিডিও দেখতে চান? দেখতে চান বিভিন্ন আপডেট কৃষিকাজ। তাহলে আমাদের

এই চ্যানেলটি দেখতে পারেন এখানে আপনি সুন্দর সুন্দর ভিডিও পাবেন)

আরো পড়ুন:

. সুন্দর কথা বলার কৌশল।

২. গুগলের জানা অজানা নানান তথ্য

৩. স্কুল লাইভ নিয়ে স্ট্যাটাস

৪. গুগলে মানুষ কোন বিষয়ে বেশি সার্চ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *