Trending

মালেয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর উপায়

সহজে মালেয়েশিয়া থেকে টাকা পাঠানো

মালেয়েশিয়া থেকে টাকা পাঠানো : সবাইকে আবারো শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি নতুন আরেকটি লেখা। যে লেখাটি

আপনাদের জন্য অনেক কাজে লাগবে।  আজকের এই লেখাটি হতে যাচ্ছে অনেক তথ্যবহুল । আমরা অনেকেই

মালেয়েশিয়া থাকি বিশেষ করে যারা বাংলাদেশী প্রবাসী ভাই কাজের জন্য বা বিভিন্ন ব্যবসা বাণিজ্য করার জন্য মালেয়েশিয়া

অবস্থান করেন। তারা মাঝে মধ্যেই দেশের মানুষ জনের জন্য টাকা-পয়সা প্রদান করে থাকেন। কিন্তু আমরা কিছু তথ্য না

জানার কারণে অনেকভাবে নিজেরা ঠকে যাই। আর আমাদের টাকা পাঠাতে হয় অনেক ভোগান্তি সহ্যকরে। আজ তাই

আমি আপনাদের সাথে এমন কিছু তথ্য শেয়ার করব যে তথ্যগুলো জানলে , একদিকে যেমন আপনার টাকা খরচ কম হবে

অন্যদিকে আপনি খুব সহজেই দ্রুত তম সময়ের মধ্যে দেশে টাকা পাঠাতে পারবেন। আমরা অনেকেই প্রচলিত পদ্ধতির

মাধ্যমে দেশে টাকা পাঠিয়ে থাকি। কিন্তু বর্তমানে কিছু মোবাইল অ্যাপ আছে যে অ্যাপ গুলো ব্যবহার করে নিমিষেই

দেশে বৈধ ভাবে টাকা পাঠাতে পারি। আজকে মূলত আমি সেই বিষয়গুলো নিয়েই আপনাদের সাথে আলোচনা করবো।

প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ুন তাহলে আশা করি আপনার জন্য এই লেখাটি অনেক কার্যকরী হবে। এছাড়াও আপনি এই

লেখা টি শেয়ার করতে পারেন সবার সাথে এতে করে আপনার বন্ধু-বান্ধব যারা আছে তাদেরও কাজে লাগবে।

 eRemit online money transfer মাধ্যমে মালেয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশে টাকা প্রেরণ

মালয়েশিয়া থেকে টাকা পাঠানোর সবচেয়ে সহজ একটি অ্যাপ ইচ্ছে eRemit online money transfer । এটা ব্যবহার করলে

খুব সহজেই মালেয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে পারবেন। আর এর জন্য আপনাকে যা করতে হবে। তাহলো

আপনার মোবাইলে অথবা কম্পিউটারে এই অ্যাপটি ডাউনলোড নিয়ে নিজের একটি অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। আর তার

জন্য আপনাকে মাত্র কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করতে হবে। আর এই টাকা অ্যাপের মাধ্যমে পাঠানো কিন্তু একদম বৈধ।

আপনি বাংলাদেশের যে সকল সিডিউল ব্যাংক এই অ্যাপের সাথে পার্টনারে কাজ করে সেই সকল ব্যাংকে টাকা পাঠাতে

পারবেন।আপনাদের আরো সুন্দর ভাবে বোঝার জন্যে আমরা নিচে একটি লিঙ্ক দিলাম। যে লিঙ্ক এ এই অ্যাপ ব্যবহার

সম্পর্কে সুন্দর একটি ভিডিও দেওয়া আছে। যে ভিডিওটি দেখলে আপনি খুব সহজেই বুঝতে পারবেন যে কিভাবে এই

অ্যাপটি ব্যবহার করতে হবে।

(ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন)

বিকাশের মাধ্যমে মালেয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানো

মালয়েশিয়া থেকে বিকাশের মাধ্যমে টাকা পাঠান বর্তমানে খুবই জনপ্রিয় একটি মাধ্যম। অনে কেই বিকাশের মাধ্যমে

মালয়েশিয়া থেকে টাকা পাঠিয়ে থাকেন। আর সে ক্ষেত্রে সাধারণত দুটি পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়। একটি হচ্ছে বিকাশের

পেমেন্ট পয়েন্টে গিয়ে। আরেকটা হচ্ছে বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে। দুটি পন্থাই বাংলাদেশের জন্য বৈধ । আপনি ইচ্ছা করলে

যেকোনো টি ব্যবহার করে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে পারেন, এবং সেই টাকা সরকার কর্তৃক বোনাস সহ আপনি

বাংলাদেশের গ্রহণ করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আপনারা অল্প কিছু পরিমাণ কমিশন বিকাশ এজন্ডে বা ব্যাংকে প্রদান করতে

হবে। এর জন্য যেসব কাগজপত্র লাগবে, আপনার পাসপোর্ট, আপনার কাজের স্থান, কাজের ধরন, জন্মতারিখ, মোবাইল

নাম্বার ইত্যাদি দিয়ে প্রথমে আপনার একটি একাউন্ট খুলতে হবে। প্রথমবার টাকা পাঠানোর সময় শুধু একবার একাউন্ট

করলেই চলবে। পরবর্তীতে আর কোনো অ্যাকাউন্ট প্রয়োজন হবেনা। ওই অ্যাকাউন্ট দিয়ে আপনি যেকোন নাম্বারে

বাংলাদেশের টাকা পাঠাতে পারবেন। যদি আরো বিস্তারিত জানতে চান এবং এই সম্পর্কে ভিডিও দেখতে চান তবে নিচের

লিংকে ক্লিক করুন আর দেখুন বিস্তারিত বিকাশ কিভাবে ব্যবহার করতে হয়।

                                                        (বিকাশ ব্যবহার করার ভিডিও)

Western Union এর মাধ্যমে মালেয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশে টাকা প্রেরণ

এই মাধ্যমেও বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর জন্য এটা বেশ অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম। কিছু দিন আগেও অনেক লোক এই

মাধ্যমে টাকা দেশে পাঠাতো কিন্তু বর্তমানে অনেক গুলো মাধ্যম থাকায় জনপ্রিয়তা কিছুটা হ্রাস পেয়েছে তবুও ব র্তমানে

সাধারণ মানুষজনের কাছে ওয়েস্টার্ণ ইউনিয়ন এর মাধ্যমে ব্যাংক থেকে টাকা গ্রহণ করা বেশ জনপ্রিয় হয়ে গেছে। কারণ

ওয়েস্টার্ণ ইউনিয়ন এর মাধ্যমে খুব সহজেই ব্যাংব খেবে ও  নিজের মোবাইলের অ্যাপ দিয়ে নিজের প্রয়োজনীয় টাকা প্রদান

এবং গ্রহণের কাজটি করতে পারে। অথবা ব্যাংকে গিয়ে বাংলাদেশের অধিকাংশ ব্যাংকের যেকোন শাখায় টাকা পাঠানো

যায় । তাই এই মধ্যমে টাকা পাঠানো খুব সহজ।

ইসলামী ব্যংক ও সেলফিনের মাধ্যমে মালেয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানো

বর্তমানে এই ব্যাংকের অনেক শাখা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে খোলা হয়েছে। আর এর শাখা মালেয়েশিয়াতেও আছে। তাছাড়া এর

যে সেলফিন অ্যাপ আছে যার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই দেশে টাকা পাঠাতে পারবেন।  একদিকে যেমন অন্যান্য

এজেন্সির মাধ্যমে ইসলামী ব্যাংক বিদেশ থেকে বাংলাদেশে টাকা গ্রহণ করে । দেশে যেমন জনগনের মধ্যে ব্যাংকিং সেবা

প্রদান করে থাকে  অন্যদিকে মালেয়েশিয়াতেও বাংলাদেশী লোক যে এলাকায় বেশি সেখানে গড়ে উঠেছে এই ব্যাংকের

শাখা। তাই একদিকে যেমন তারা অন্য এজেন্সির মাধ্যম হিসেবে কাজ করে টাকা পাঠানোর জন্য তেমনি নিজেরাও সরাসরি

রিংগিত গ্রহণ ও টাকা প্রদান করে থাকে এই ইসলামী ব্যাংক। বাংলাদেশী অধিকাংশ লোক মুসলিম হওয়াতে তাদের কাছে

ইসলামী ব্যাংক খুবই জনপ্রিয়। এছাড়াও এই ব্যাংকের সার্ভিস খুবই ভাল। যে কেউ খুব সহজেই দেশে টাকা পাঠাতে

পারবেন।

অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে মালেয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানো

এই সকল প্রতিষ্ঠান ছাড়াও আরও বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান ও অ্যাপস আছে। যারা বাংলাদেশের টাকা প্রেরণ করে থাকে। তাদের

মধ্যে থেকে আমি শুধু আপনাদের সাথে যে সকল প্রতিষ্ঠান এবং অ্যাপগুলো বহুল প্রচলিত এবং খুব সহজে ব্যবহার করা

যায় বিশ্বস্ততার সাথে সেইগুলো নিয়ে একটু আলোচনা করলাম। বাকিগুলো আজকের আলোচনা এখানে উল্লেখ করলাম

না। এছাড়াও আপনি নির্দিষ্ট অঙ্কের ফি দিয়ে বিভিন্ন ব্যাংকের মাধ্যমেও বাংলাদেশের টাকা প্রদান করতে পারেন। এর মধ্যে

উল্লেখযোগ্য হচ্ছে মানি গ্রাম, অগ্রণী ব্যাংক , সোনালী ব্যাংক সহ আরো বেশ কয়েকটি তালিকাভুক্ত ব্যাংক।

শেষ কথা

আশাকরি উপরোক্ত মালেয়েশিয়া থেকে টাকা পাঠানো লেখাটি পড়ে আপনাদের অনেক ভাল লেগেছে। আর যদি

আপনাদের এই ধরনের আরো তথ্য মূলক লেখা দরকার থাকে তবে আমাদের কাছে লিখতে পারেন। আর দয়া করে  এই

লেখাটি সবার সাথে শেয়ার করবেন । যাতে করে সকলেই এই লেখা থেকে উপকার পায়। প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ার

জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।

আরো পড়তে পারেন:

১. দুবাই টাকার রেট

২. দুবাইয়ের ১০০০ দিরহাম সমান কত?

৩. ইতালি থেকে টাকা পাঠানোর উপায়

৪. আমেরিকা থেকে টাকা পাঠানোর উপায়।

৫. লন্ডন থেকে টাকা পাঠানো

Leave a Reply

Your email address will not be published.