Uncategorized
Trending

পুরুষাঙ্গ না দাড়ানোর কারণ ও প্রতিকার

lingo na darano

পুরুষাঙ্গ না দাড়ানোর কারণ ও প্রতিকার : বর্তমানে অনেকেরই মধ্যে এই সমস্যাটি দেখা যাচ্ছে। কিন্তু অনেকেই লজ্জার

খাতিরে বলতে পারছেনা। আবার অনেকেই এটাকে অসুখ মনে করছে না। তাই যারা এই অসচেতন অবস্থায় আছেন । যারা

এটাকে অসুখ মনে করছেন না। তাদের উদ্দেশ্য বলতে চাই আপনি যদি জানতেন এই সমস্যাটির কারণে কত? অ-প্রিতিকর

ঘনটনা বর্তমান সমাজে ঘটছে তার অন্ত নাই। আমরা প্রতিনিয়তই এই ধরনের সমস্যার সন্মুখিন হয়ে থাকি । তাই লজ্জা নয়

জানতে হবে। আমাদের থাকতে হবে আরো বেশি সর্তক। যদি আমাদের স্বাস্থ্যর ব্যাপারে আমরা সচেতন না হই তাহলে

সংসার জীবনে আসবে চরম অ-শান্তি। তাই আমার এই পুরুষাঙ্গ না দাড়ানোর কারণ ও প্রতিকার লেখায় আমি এই

বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো যে লেখাটি পড়লে আপনার অনেক উপকারে আসবে । তাই প্রথম থেকে শেষ

পর্যন্ত পড়তে থাকুন আর  খুঁজে নিন আপনার জীবনের সমস্যার সমাধান।

পুরুষাঙ্গ না দাঁড়ানোর কারণ / লিঙ্গ উত্থান জনিত সমস্যা ও সমাধান

পেনিস শৈথিল্য হল এক প্রকারের যৌন রোগ। যা সাধারণত পুরুষাঙ্গ উত্থিত অবস্থাকে ধরে রাখতে পারে না। আবার কখনো

উত্থিত অবস্থা থেকে নিস্তেজ অবস্থায় চলে যায়। এই সমস্যাটি এখন অনেক পুরুষের মধ্যে দেখা যায়। সাধারণত এই

সমস্যাটির জন্য আমাদের অসচেতনতাই বেশি দায়ী। আমরা যদি জীবনে একটু সচেতন হতাম তবে এই ধরনের সমস্যা

দেখা দিতনা। এই সমস্যাটি হবার জন্য আরো যে সকল বিষয় দায়ী তা হলো –

  • ডায়াবিটিস।
  • স্নায়ুতাত্বিক সমস্যা।
  • অতিরিক্ত মাদকা শক্তি।
  • প্রোস্টোটেকটমি
  • হাইপোগোনাডিসম।
  • মানসিক অবসাধ বা দুশ্চিন্তা।
  • সংঙ্গিনীর প্রতি ঘৃনার অনুভূতি।
  • হৃদযন্ত্রের রোগ।

আর এই ধরনের সমস্যা দেখা যাওয়ার সাথে সাথে ভাল একজন ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহন করতে হবে। যাতে করে দীর্ঘদিন

এই সমস্যায় আপনার ভূগতে না হয়। কারণ তানাহলে দেখা যায় একটি রোগ থেকে আরেকটি রোগের সৃষ্টি হয়েছে।

লিঙ্গের রগ ভেসে গেলে করনীয় কি?

যদি কোন কারণে আপনার লিঙ্গের রগ ভেসে গেলে তাতে ভয় পাওয়ার করণ নেই। অনেক সময় দেখা যায় আমাদের মধ্যে

কিছু ভাজে অভ্যাস থাকে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো হস্তমৈথুন করা। আর যারা নিয়মিত এই কাজটি করে তাদের দেখা

যায় অনেক সময় এই সমস্যাটি হতে পারে। আর তাই আমাদের এই ভাজে অভ্যাসটি খুব তাড়া তাড়ি ছেড়ে দিতে হবে।

কারণ এই অভ্যাসটি থাকার ফলে একদিকে আপনি যেমন আপনার পুরুষত্ব হারাচ্ছেন অন্যদিকে আপনার লিঙ্গের ক্ষতি

ডেকে আনছেন। তাই এ ব্যাপারে আপনার খুবই সচেতন থাকতে হবে।

সুস্থ পুরুষাঙ্গের বৈশিষ্ট্য

একটি সুস্থ লিঙ্গের আকার কতটুকু হবে আর আর এর বৈশিষ্ট্যই বা কেমন। আর যারা এই ধরনের প্রশ্ন করেন তাদের  প্রশ্নের

উত্তরে বলা যায়। একটি সুস্থ সবল পুরুষাঙ্গ সাধারণত লম্বা ও মোটা স্বাভাবিক হয়ে থাকে।  এখন অনেকের মনে প্রশ্ন হতে

পারে লম্বা কতটুকু থাকলে আমি বুঝতে পারবো আমার বিশেষ অংঙ্গটি সঠিক আছে। তাদের জন্য বলা এটা অনেক সময়

আপনার দৈহিক গঠন ও জেনেটিক কারণে হয়ে থাকে । তবে সাধারণত যদি আপনার পুরুষাঙ্গের সাই উত্তেজীত অবস্থায় ৪

থেকে ৬ ইঞ্চি হয়ে থাকে তবে এটা স্বাভাবিক।  ৪  থেকে ৬ ইঞ্চি বলার  কারন হলো সবার উচ্চতা এক সমান নয় তাই। আর

মোটা যদি ১.৫ থেকে ৩ ইঞ্চি হয় তাহলে সঠিক আছে। আর একটি সুস্থ্য লিঙ্গের অন্ডকোষ দুটো মাঝারি সাইজের থাকবে।

আগা গোড়া সমান মোটা থাকবে।

পুরুষাঙ্গ ছোট হয়ে যাওয়ার কারণ/ পেনিস ছোট হয় কেন?

বিভিন্ন কারণেই আপনার বিশেষ অংঙ্গের আকার ছোট হয়ে যেতে পারে। এর মধ্যে যে কারণ গুলো সবচেয়ে বেশি দায়ী

তাহলো আপনি যদি বিছানায় উপুর হয়ে শুয়ে থাকেন অথবা শুয়ে কোন বালিশের সাথে আপনার লিঙ্গ ঘসাঁ লাগাতে থাকেন

তবে আপনার বিশেষ অংঙ্গ ছোট হতে পারে। আবার অনেক সময় দেখা যায় অতিরিক্ত হস্থ মৈথুনের ফলেও আপনার এই

রকম ছোট হয়ে যেতে পারে। যদি এই সকল কারণ ছাড়া আপনার বিশেষ অংঙ্গটি অতিরিক্ত মাত্রায় ছোট থাকে তবে

আপনার ডাক্তারের কাছে যাওয়া উচিৎবলে আমি মনে করি। বর্তমানে এর ভাল কর্যকরী সার্জারী বাংলাদেশে আছে। আপনি

চাইলে নিচের লিংকে ক্লিক করে যোগাযোগ করতে পারেন ।

                                       (আপনার পুরুষাঙ্গ বড় করতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন)

পুরুষাঙ্গ না দাড়ানোর কারণ/নুনুর সমস্যা

আপনার কয়েকটি কারণে শরীরের এই বিশেষ অংঙ্গটি  শক্ত নাও হতে পারে বা না দাড়ানোর কারণ হতে পারে। এদের মধ্যে

প্রধান কারন হচ্ছে দুটো। একটি হচ্ছে হরমোন জনিত কারনে। আরেকটি হচ্ছে মানুষিক কারণে। যদি শরীরে কিছু

হরমোনের অভাব দেখা যায় টেস্টোস্টেরন হরমোন ও থাইরয়েট তখন এই ধরনের সমস্যা হতে পারে। এছাড়াও ডায়াবেটিস

এর সমস্যার কারণে হতে পারে। শুক্রাশয় ঠিক মত কাজ না করা  লিভারের সমস্যার করনে হতে পারে হর্টের সমস্যার

কারণে হতে পারে। নার্ভ এর সমস্যার করনে হতে পারে পেনিসের কোন ধরনের রোগের কারনে হতে পারে। অনেক সময়

কিছু ওষুধ সেবনের কারণেও হতে পারে। বিশেষ করে মানষিক রোগের ওষুধ তার মধ্যে অন্যতম । মাদক সেবন ও অতিরিক্ত

শারীরিক ওজন বৃদ্ধির কারনেও এই সমস্যাটি হতে পারে।

পুরুষাঙ্গা বড় করার ইসলামিক উপায়

যদি কোন মুসলমান বিশ্বাসের সাথে সুরাতুল মুহমিন আয়াত নাম্বার ৪৪ এই আয়াতের সবটুকু নয় শুধু নিচের অংশটুকু কেউ

যদি নিয়মিত পাট করে তবে দেখা যাবে তার লিঙ্গ আস্তে আস্তে বড় হয়ে যাবে। এছাড়াও যদি খুব তাড়াতাড়ি ফল পেতে চায়

তাহলে নিয়ম হচ্ছে ছোট একটি পাত্রে সরিষার তৈল নিয়ে প্রতিদিন ১৯ বার পড়ে তাতে ফুক দিয়ে সেই তৈল মালিশ করবে।

তাহলে আল্লাহতালার অশেষ রহমতে খুব তাড়াতাড়ি ১ মাসের মধ্যে মোটা এবং বড় হবে  ইনশাল্লাহ্। আরা যে আয়াত সেটি

হলো- “ ইন্নাল্লহা বাসিরুম বিলইবাদ”

পুরুষাঙ্গের ঘা হলে করনীয় / লিঙ্গ সমস্যা

যদি কোন কারনে পরুষাঙ্গে ঘা হয়ে যায় প্রথমে আমাদের জানার চেষ্টা করতে হবে কি কারণে এই রোগের সৃষ্টি হয়েছে।

কারণ এই রোগের বিস্তার কয়েকটি কারণে হতে পারে । তার মধ্যে যৌনবাহিত রোগ অন্যতম যেমন সিফলিস , গনেরিয়া ও

ঘাঁ অন্যতম। তাই যদি কোন কারণে আপনার বিশেষ অঙ্গে এই ধরনের সমস্যার দেখা যায় তবে দেরী না করে সাথে সাথে

ভাল এক জন ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া দরকার । এছাড়াও অপরিস্কার থাকার ফলে বেশ কিছু অসুখ দেখা যেত পারে তার

জন্য নিয়মিত পরিস্কার পরিছন্ন থাকা অপরিহার্য।

কি খেলে লিঙ্গ শক্ত হয় / লিঙ্গ শক্ত করার ঔষধ

অনেকের মনে প্রশ্ন কি খেলে আমাদের লিঙ্গ শক্ত হবে। বা যৌন কাজের সময় অধিক সময় সহবাস করা যাবে। বর্তমানে

লিঙ্গ শক্ত না হওয়া সমস্যাটি খুবই প্রকট আকার ধারণ করতেছে।  বেশির ভাগ পুরুষ কৈশোর বয়স হতেই পর্নোগ্রাফি দেখে

তাদের শুরু হয় অতিরিক্ত হস্তমৈথুন যার ফলে লিঙ্গ তার কার্য ক্ষমতা আস্তে আস্তে হারিয়ে ফেলে। আবার অনেক সময় এই

সমস্যা বয়সের কারণেও হতে পারে। তাই আপনার আগে কি কারণে আপনার এই সমস্যা হয়েছে তার উপর ভিত্তি করে

আপনার চিকিৎসা নিতে হবে। যদি আপনার সমস্যাটি জটিল হয়ে থাকে তবে আপনাকে অবশ্যই ডাক্তারের কাছে যেতে

হবে। আর আপনার সমস্যাটি যদি স্বাভাবিক হয় তাহলে কিছু খাদ্য অভ্যাস ও নিয়মিত ব্যায়ামের মাধ্যমে এই সমস্যার

সমাধান করে নিতে পারেন। আর আপনার লিঙ্গ শক্ত করার জন্য যে খাবার গুলো সরাসরি ভুমিকা পালন করে সেগুলো

হলো-

  • মধূ
  • সব ধরনের বাদাম।
  • কালোজিরা।
  • রসূন
  • মাছ
  • খেজুর
  • দুধ
  • ডিম
  • কলা
  • কিসমিস,ছোলা।
  • হরিনের কস্তুরি।

লিঙ্গের ব্যায়াম / লিঙ্গে রক্ত সঞ্চালন কিভাবে বাড়ানো যায়

এটা অদিকাল হতে অধুনিক পর্যায়েও খুবই কার্যকরী একটি পদ্ধতি। এই পদ্ধতি অনুসরণ করে অনেকেই তাদের সমস্যার

সমাধান করে নিয়েছেন। আমেরিকার এক গবেষনায় দেখা গেছে কিছু সংখক লোককে দু-দলে ভাগ করে তাদের উপর

পরিক্ষা পরিচালনা করা হয়েছে তাদে দেখা গেছে যারা ওষুধ খেয়েছে তাদের তুলনায় ব্যায়াম গ্রহণ কারিদের রেজাল্ট অনেক

বেশি ভাল ছিল। তাই আপনি কিছু সাধারণ ব্যায়ামের মাধ্যমে আপনার এই বিষেশ অঙ্গটি সুস্থ সবল রাখতে পারেন। আর

তার জন্য যে ব্যায়াম গুলো করতে হবে তা  নিম্নে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

১. অনেক সময় দেখাযায় লিঙ্গে রক্ত চলাচল কমে যায় তার জন্য এই অংঙ্গটি আস্তে আস্তে নিস্তেজ হয়ে পড়ে। তাই যদি কেহ নিয়মিত আস্তে হাত দ্বারা নরম করে ধরে প্রতিদিন সকাল ও রাত্রে নাড়াচাড়া করে তবে এই অংশের রক্ত চলাচল বেড়ে যায় যার ফলে এটা আস্তে আস্তে সুস্থ ও সবল হয়ে থাকে।

৩. অনেকেই আবার তৈল দ্বার মালিশ পদ্ধতিও ব্যবহার করে থাকে । এটা করার ফলে লিঙ্গ আকারে কিছুট বড়ও হয়ে থাকে। তাই যদি কেহ নিয়মিত যে কোন ধরনে তৈল বা মধূ হাতে  নিয়ে আস্তে আস্তে লিঙ্গে মালিশ করতে থাকে তবে বড় ও শক্ত হতে খুবৈই কার্যকরী ভুমিকা পালন করে।

৩. কেগেল ব্যায়ামের  মাধ্যমেও লিঙ্গের সুস্থ্যতা ও দীর্ঘ সময় সহবাস করার ক্ষমতা অর্জন করা যায়। এই ব্যায়ামটি করার পদ্ধতি হচ্ছে। সুন্দর করে মেরুদন্ড সোজা করে বসে নিশ্বাস নিয়ে পায়খানার রাস্তা চিপ দিয়ে আটকিয়ে রাখতে হবে। যেমন করে আমাদের পায়খানা আসলে আটকিয়ে রাখি তেমনি করে। এবার কিছু খন পড়ে আস্তে আস্তে নিশ্বাস ছেড়ে দিন। এভাবে প্রতিদিন ২০ বার করে দিনে ২ বার করতে থাকলে দেখা যাবে ২ থেকে ৩ মাসের মধ্যেই ভাল ফলাফল পেয়ে গেছেন।

৪. এছাড়াও প্রতিদিন নিয়ম করে হাটতে পারেন এবং কিছু শারীরিক ব্যায়াম করতে পারেন যার ফলে শরীর সুস্থ থাকার পাশাপাশি বিষেশ অঙ্গের রক্ত সঞ্চালন বেড়ে যাবে যাতে করে এটা সুস্থ সবল হবে।

পুরুষাঙ্গ না দাড়ানোর কারণ ও প্রতিকার এর শেষ উপদেশ

আশাকরি উপরোক্ত পুরুষাঙ্গ না দাড়ানোর কারণ ও প্রতিকার লেখাটি পড়ে আপনাদের অনেক উপকার হবে। এছাড়া্ও

আপনাদের কাছে অনুরোধ । যদি কোন সময় এই ধরনের সমস্যায় পতিত হন তবে  কোন ভাবেই হতাশা না হয়ে ভাল কোন

ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন ।বাজারের বা হাতুরে কোন ডাক্তারের কাছ থেকে কোন প্রকার ওষুধ সেবন করবে না। তাহলে

হিতে বিপরিত হতে পারে। আবার অর্থিক ভাবেও ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারেন। তাই প্রতারক হতে সাবধান। সবাই ভাল থাকুন সুস্থ

থাকুন। আবার কথা হবে নতুন কোন বিষয় নিয়ে। আমাদের সাথেই থাকুন। আর আরো কোন বিষয়ে জানার আগ্রহ থাকলে

আমাদের লিখতে পারেন। ধন্যবাদ কষ্ট করে লেখাটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ার জন্য।

এই বিষয়ের আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় পড়তে পারেন:

১. লিঙ্গ ছোট হবার কারণ

২. লিঙ্গ বড় করার উপায়।

. লিঙ্গ ছোট হলে সমস্যা

৪. লিঙ্গের রোগ ও প্রতিকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *