Uncategorized

বাদাম খাওয়ার উপকারিতা

বাদাম খওয়ার নিয়ম

বাদাম খাওয়ার উপকারিতা: আজকে আমি একটা সুন্দর বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। যে বিষয়টা আমাদের সবারই প্রয়োজন। আপনারা হয়তো উপরের লেখাটি দ্বারা বুঝে গেছেন কি বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। আমাদের শরীর ভালো রাখতে হলে আমাদের শরীরে দিতে হবে প্রয়োজনীয় পুষ্টি গুলো। তবেই থাকবে আমাদের শরীর ভালো।

শরীরের পুষ্টির জন্য বাদাম এর জুড়ি নেই। বাদামে রয়েছে বহুবিধ পুষ্টিগুণ। যেগুলো আমাদের শরীরের জন্য অত্যাবশ্যকীয়। তাই আসুন বাদামের যে গুনাগুন রয়েছে সেগুলো জেনে আমরা নিয়মিত বাদাম খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলি এবং সুস্থ-সুন্দর জীবন গড়ি। আর তাই বাদাম খাওয়ার উপকারিতা লেখাটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ার জন্য অনুরোধ রইল।

বাদাম খাওয়ার নিয়ম ও উপকারিতা / চিনা বাদাম খাওয়ার নিয়ম ও উপকারিতা

বাদাম খাওয়ার উপকারিতা
বাদাম খাওয়ার উপকারিতা

এটা হচ্ছে অনেক গুণের অধিকারী। বাদাম খেলে শরীর অনেকগুলো উপকার হয়ে থাকে। আর তাই যে সকল উপকার পাওয়া যায় সে সকল উপকার গুলো নিচে আলোচনা করা হল । যা শুনলে আপনারা অবাক হবেন। দেখা যাক বাদাম এ কি কি উপকার হয়ে থাকে শরীরের জন্য।

বাদাম থেকে উপকারী কোলেস্টেরল পাওয়া যায়

বাদামের মধ্যে রয়েছে কোলেস্টরেল। কেউ যদি এই নিয়ম করে প্রতিদিন বাদাম খায় তাহলে শরীরে কোন প্রকার কোলেস্টরলের অভাব হবে না। তাই আপনার শরীরে যদি কোন কোলেস্টেরলের অভাব থাকে অথবা কোলেস্টরেলের ঘাটতি পূরণ করতে চান তবে অবশ্যই নিয়ম করে বাদাম খেতে হবে।

বাদাম শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

এর মধ্যে রয়েছে সি-রিঅ্যাক্টিভ প্রোটিন ও ইন্টারলিউকিন যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায । আর তাই যাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেছে তাদের জন্য বাদাম খাওয়া অত্যান্ত জরুরী।

হজমের সমস্যা দূর করে বাদাম খেলে

আমাদের অনেকেরই রয়েছে হজম শক্তির সমস্যা । বিশেষ করে যাদের বয়স একটু বেশি হয় তাদের খাবার হজম হতে চায় না। আর এই হজম সমস্যা সমাধান পেতে আপনাকে খেতে হবে বাদাম। কারণ বাদামের মধ্যে রয়েছে প্রচুর ফাইবার। যা আপনার হজম শক্তি কে বাড়িয়ে দিবে । আপনার পেটের খাবার সহজে হজম হয়ে যাবে খুব তাড়াতাড়ি। এতে করে আপনার হজম শক্তি বৃদ্ধি পাবে।

বাদাম খেলে হৃদপিণ্ড ভালো থাকে

বাদামের মধ্যে সামান্য পরিমাণ কোলেস্টেরল থাকে এর বিপরিতে অন্যান্য পুষ্টিগুণ বেশি থাকে। যার কারণে হৃদপিন্ডের জন্য বাদাম খাওয়া অনেক ভালো । কারণ বাদাম এর অন্যান্য গুন গুলো রক্তের সমস্যা দূর হয়। যার কারণে মানুষের হৃদপিণ্ড ভালো থাকে।

বাদামে ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণ থাকে

বাদামের মধ্যে রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম যা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। অনেকগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা গেছে শরীরের প্রয়োজনীয় খনিজ পদার্থ ঘাটতি দেখা দিলে অল্প সময়ের মধ্যে ব্লাড প্রেসার মারাত্মকভাবে বেড়ে যায়। যদি এরকম রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের বাইরে বেশ কিছুদিন থাকে তাহলে হঠাৎ করে স্ট্রোক হয়।

হতে পারে  হার্ট অ্যাটাক।এর সাথে দেখা দিতে পারে কিডনির সমস্যা । তাই যেন কোন সময় ম্যাগনেসিয়াম এর ঘাটতি দেখা না যায় সেদিকে খেয়াল রাখা একান্ত প্রয়োজন। আর তাই নিয়মিত বাদাম খেলে দেহে ম্যাগনেসিয়াম এর ঘাটতি কখনো দেখা দিবেনা।

হাড় ও মাংশপেশি মজবুত করে বাদাম

বাদামে রয়েছে ফসফরাস যা শরীরের জন্য অনেক উপকারী । আর এই ফসফরাস শরীরে প্রবেশ করার সাথে সাথে এমন কিছু উন্নতি ঘটে যে কারণে হাড়ের ক্ষয় রোধ থেকে শুরু করে কোন ধরনের সমস্যা দেখা যায় না। তাই যদি কেউ নিয়মিত বাদাম খায়, তবে তার যে কোন হাড়ের সমস্যা আছে সকল সমস্যা দূর হবে চিরতরে ।

তাই হাড়ের সমস্যার জন্য প্রতিদিন নিয়ম করে আমাদের বাদাম খেতে হবে।

বাদাম ত্বক সতেজ রাখে

বাদামের মধ্যে রয়েছে প্রাকৃতিক তেল । যা শরীরের জন্য খুবই উপকারী। তাই যারা আমরা বাদাম খাই তাদের এই প্রাকৃতিক তেল শরীরের ভেতর প্রবেশ করার ফলে তাদের ত্বক সতেজ এবং উজ্জ্বলতা বেড়ে যায়। আর ত্বকের এই উজ্জলতা বৃদ্ধি পাওয়ার জন্য নিয়মিত বাদাম খাওয়া প্রয়োজন।

দাঁত ভাল রাখতে বাদাম

দাঁত ভালো রাখতে বাদামের জুড়ি নেই। বাদামের মধ্যে রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম ও ফসফরাস জাতিয় উপদান যা দাঁতের  জন্য খুবই জরুরী । আর যারা নিয়মিত বাদাম খায় তাদের দাঁত থাকে সুন্দর। আপনার দাঁতে যেন কোনো ধরনের সমস্যা না থাকে তাই আপনাদের নিয়মিত বাদাম খেতে হবে।

 বাদামে স্মৃতিশক্তি বাড়ায়

বাদামের মধ্যে রয়েছে এমন বিশেষ কিছু উপাদান যাা  কগনিটিভ পাওয়ার হিসেবে কাজ করে। সহজ কথায় বললে মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। আর এ বিষয়ে আমেরিকার অ্যান্ড্রস ইউনিভার্সিটির গবেষকদের করা একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে বাদামে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

আর এ জন্যই তারা ছাত্র-ছাত্রীদের স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধির জন্য বাদাম খাওয়ার পরামর্শ দেন।

বাদাম শরীরের ওজন কমায়

বাদাম খাওয়ার ফলে আপনার শরীরে খিদের ভাব কমে যাবে। এর ফলে যারা ভোজন রসিক তাদের খিদে কম লাগে তারা খাওয়া থেকে বিরত থাকে। যার ফলে তাদের অতিরিক্ত শর্করা ও ক্যালরি জমে শরীরের অতিরিক্ত ক্যালোরি জমা থেকে বিরত থাকবে । এভাবে নিয়ম করে বাদাম খেলে খিদের ভাব কমে যাবে শরীরে অত্যধিক পরিমাণে ক্যালরির পরিমাণ কম গ্রহণ হবে এতে করে দিনদিন ওজন কমে যাবে।

(নিয়মিত কৃষি বিষয়ক ভিডিও দেখতে চাইলে দেখতে পারেন আমাদের এই চ্যানেলটি। এখানে দেখতে পাবেন কৃষি বিষয়ক সকল আপডেট ভিডিও)

কাচাঁ বাদাম খাওয়ার নিয়ম ও উপকারিতা

বাদাম কাচাঁ খাবে নাকি ভেজে খেতে হবে এনিয়ে নানান যুক্তি আছে। কারণ আপনি যদি বাদাম কাচাঁ খেতে চান তাহলে এর সাথে কিছু ক্ষতিকারক ব্যাক্টেরিয়া থাকে আবার ভেজে খেলে বাদামের কিছু পুষ্টিগুন হারায়। তাই এই দুই দিক বিবেচনা করে সবচেয়ে উত্তম পন্থা হলো বাদামকে হালকা ভেজে কাচাঁ কাচাঁ খাওয়া ।

আর কাচাঁ বাদাম খেলে মূলত একই উপকার হয় তবে উপকারের মাত্রাটা একটু বেশি থাকে। তাই যদি সম্ভব হয় বাদাম হালকা ভেজে কাচাঁ কাচাঁ খাওয়ার চেষ্টা করবেন।

কাঠ বাদাম খাওয়ার উপকারিতা / আমন্ড বাদাম এর উপকারিতা

অন্যান্য বাদামে যেমন পুষ্টি গুন আছে তেমনি কাঠ বাদামেও রয়েছে অনেক পুষ্টিগুন । আর তাই অনেকেই অন্যান্য বাদামের তুলনায় কাঠ বাদাম কেই নানা করণে পছন্দ করে থাকে।  আর এর মধ্যে যে সকল পুষ্টি গুন বিদ্যমান রয়েছে সেই সকল পুষ্টিগুন সম্পর্কে নিচে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হল।

  • কাঠ বাদাম খাওয়ার ফলে এটা  হজমশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে বিশেষ করে  ভেজানো কাঠ বাদাম পাকস্থলির প্রয়োজনীয় এনজাইম নিঃষরণে সহায্য করে।
  • এই বাদামের মধ্যে রয়েছে মোনোস্যাচুরেটেড ফ্যাট খিদে কমায় ‍ও ওজন কমাতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে সাহয্য করে।
  • এই বাদাম খাওয়ার ফলে শরীরের ক্ষতিকারক কোলেস্টেরল ও লো ডেন্সিটি লিপেপ্রেটিন নিয়ন্ত্রন করে থাকে।
  • যদি অকালপক্কতা ও শরীরের ফোলাভাব কমাতে চান তহলে আপনার কাঠবাদাম খেতে হবে।
  • ভেজানো কাঠ বদামে উপস্থিত ভিটামিন B17 যা ক্যান্সার রোধে সাহায্য করে।
  • এর আরেকটি উপাদান থাকার ফলে শরীরে কোন প্রকার টিউমার হতে দেয়না আর সেই উপাদান হলো ফ্ল্যাভোনয়েড পরিমাণ মত কাঠ বাদাম খাওয়া প্রয়োজন।
  • যদি কেহ রোজ সকালে খালি পেঠে কাঠ বাদাম খায় তাহলে শরীরের উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রনে থাকে।
  • স্ত্রীরোগবিশেষজ্ঞরা ভেজানো আমন্ড খাওয়ার পরামর্শ দেন কারন এর মধ্যে রয়েছে ফলিক অ্যাসিড যা জন্মের সময় শিশুর খুঁত দূর করে।

পেস্তা বাদাম এর উপকারিতা

বাদাম খাওয়ার উপকারিতা
বাদাম খাওয়ার উপকারিতা

এই বাদাম খাওয়ার ফলে একদিকে যেমন আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় । অন্যদিকে আমাদের দেহের রোগ থাকলে তা নিরাময় করে। আর এর ফলে রোগের হাত থেকে মুক্ত থাকতে পারি। তাই নিয়ম করে পেস্তা বাদাম খেলে যে সকল রোগের উপকার হয় সেগুলো নিম্নে আলোচনা করা হল।

  • পেস্তা বাদামের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালরি যা আমাদের দেহের শক্তি যোগায়।
  • আমাদের শরীর ত্বক,চুল,নখ,হাড় বিকাশে বা ক্ষয়রোধে প্রোটিনের প্রয়োজন আর এই প্রটিন রয়েছে পেস্তা বাদামে।
  • শরীরের দ্রুত রক্ত প্রবাহের জন্য দরকার গ্লুকোজ এর আর এর যোগান দিয়ে থাকে কার্বোহাইড্রেট তাই যদি কেহ পেস্তা বাদাম খায় তাহলে শরীরে প্রচুর কার্বোহাইড্রেট  যোগান পায়।
  • এই বাদাম খাওয়ার ফলে হজম শক্তি বৃদ্ধি পাবে। এর মধ্যে ফাইবার থাকার কারণে হজমে সহায়তা করে।
  • অন্যান্য বাদামের ন্যায় এটা হাড় মজবুত করে থাকে। কারণ এতে রয়েছে পটাশিয়াম।
  • শক্তি বিপাকের জন্য গুরুত্বপূর্ণ  ভূমিকা পালন করে ভিটামিন বি৬ আর এই বাদামে রয়েছে ভিটামিন বি৬।
  • পেস্তা বাদামের মধ্যে থাকা কপার শরীরের সমস্ত টিস্যুতে পাওয়া যায়।এটা শরীরের লাল রক্ত কণিকা তৈরী করতে এবং স্নায়ু কোষ তৈরী করতে সহায়তা করে।

বাক্স বাদাম এর উপকারিতা

আমরা অনেক সময় আমাদের শরীরের পুষ্টি চাহিদা পুরনের জন্য অনেক কিছু খেয়ে থাকি। তার মধ্যে বাদাম উল্লেখ যোগ্য আমাদের বাজারে বেশ কয়েকটি জাতের বাদাম আছে যে গুলোর উপকার প্রায় একই রকমের । কিন্তু এদের শুধু স্বাদের ভিন্নতা রয়েছে। আরে এই সকল বাদামের মধ্যে বাক্স বাদাম হচ্ছে একটি । আর এই বাদাম খেলে যে সকল উপকারিতা পাওয়া যায় তা নিম্নে আলোচনা করা হলো।

  1. রক্ত চাপ কমায়।
  2. ক্লান্তি দুরকরে।
  3. ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।
  4. মস্তিস্কের বিকাশ ঘটায়।
  5. শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
  6. এটা থেকে এনার্জি পাওয়া যায়।
  7. হাড়কে শক্ত করে।
  8. ত্বকের সমস্যা দূর করে।

আখরোট বাদাম এর উপকারিতা

বাদাম খাওয়ার উপকারিতা
বাদাম খাওয়ার উপকারিতা

এই বাদামের গুনের কথা বলে শেষ করা যাবে না। অন্যান্য বাদামে যে সকল পুষ্টি উপাদান আছে সেগুলো বিদ্যমান থাকার পরেও এর সাথে আরো নিচের বিষয় ‍গুলো অন্তর্ভুক্ত হয়েছে আর তাহলো। আলোচনা ছোট করার স্বার্থে শুধু বাদামের পুষ্টি গুলোর মধ্যে যে গুলো নতুন শুধু সেই সকল বিষয় নিচে তুলে ধরা হলো।

  • অনিদ্রা দূর করতে সহায়তা করে।
  • চুল পড়া কমায়।
  • মানসিক অবসাদ দূর হয়।
  • মস্তিস্ক ভালো রাখে।
  • ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।
  • এই বাদাম গর্ভা অবস্থায় বেশ উপকারি।
  • আখরোট খেলে দীর্ঘায়ু লাভ করা যায়।

শেষকথা:

আশাকরি বাদামে গুণাগুন গুলো জেনে গেছেন। আর তাই এই গুন গুলো জেনে নিয়মিত বাদাম খাবেন। আপনি আপনার স্বাস্থ্য কে ভালো রাখার জন্য প্রতিদিন নিয়ম করে বাদাম খাবেন প্রত্যাশাই করি আপনাদের কাছে। কারন আপনাদের সুস্বাস্থ্য আমার কাম্য। তাই বিষয়টি যদি পড়ে ভালো লাগে থাকে অবশ্যই আপনার বন্ধু বান্ধবের সাথে শেয়ার করবেন।

আপনার মূল্যবান মতামত কমেন্টে জানাবেন। আরো কোনো বিষয় সম্পর্কে আপনার জানার আগ্রহ থাকলে অবশ্যই আমাদেরকে লিখবেন। আমরা পরবর্তীতে আপনার সেই লেখা প্রকাশ করব। ধন্যবাদ সবাইকে কষ্ট করে লেখা টি পড়ার জন্য।

আরো পড়ুন-

১. কাজু বাদাম খাওয়ার উপকারিতা

২. মধু খাওয়ার উপকারিতা

৩. যৌনাঙ্গ বৃদ্ধির উপায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *