Trending

ইংরেজি শেখার সহজ টিপস

তাড়াতাড়ি ইংরেজি শেখার উপায়

ইংরেজি শেখার সহজ টিপস: ইংরেজি এমন একটি ভাষা, যে ভাষাটি বর্তমানে প্রায় পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশেই প্রচলিত। এছাড়াও আপনি যদি ইংলিশ না জানেন তবে আপনার জন্য ভাল চাকরি থেকে শুরু করে, জীবনে উন্নতি করা প্রায় অসম্ভব। আর তাই আজকে আমি আপনাদের এইরকম একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে এমন কিছু দিক নির্দেশনা দিব।

যে দিক নির্দেশনা গুলো আপনি ফলো করার মাধ্যমে খুব সহজেই ইংরেজি ভাষাকে শিখে ফেলতে পারবেন। যেহেতু ইংরেজি একটি ভাষা, তাই এটা শেখার জন্য আপনাকে কিছুটা সময় ব্যায় করতে হবে। এক্ষেত্রে আমরা অনেকেই চেষ্টা করি খুব তাড়াতাড়ি  এই ভাষাটিকে শিখতে। কিন্তু এই ভাষাটি শিখতে গেলে আপনাকে বেশ কিছুটা সময় ছাড় দিতে হবে।

আর এর জন্য আপনার থাকতে হবে ধৈর্য পড়াশুনা চালিয়ে যেতে হবে বেশ কিছু দিন । আপনি যদি আমার দেয়া ইংরেজি শেখার সহজ টিপস গুলো অনুসরণ করেন তাহলে খুবই তাড়াতাড়ি ভাষাটি শিখে ফেলতে পারবেন।

ইংরেজি শেখার গুরুত্ব/ কেন ইংরেজি শেখা দরকার?

ইংরেজি ভাষা হচ্ছে আন্তর্জাতিক ভাষা । আপনি কল্পনা করতে পারেন ২০২১ এর তথ্য মতে পৃথিবীর প্রায় ১৩ ভাগ মানুষ এই ইংরেজি ভাষায় কথা বলে । আর তাই ইংরেজি ভাষা শেখার গুরুত্ব বলে শেষ করার মত নয়, এর গুরত্ব  অপরিসীম। আমরা যে কোন কাজই করি না কেন? আমাদের ইংরেজি ভাষা জানা প্রয়োজন।

বর্তমান যেহেতু বিশ্বায়নের যুগ তাই ইংরেজি ভাষা পরিধি আরো বেশি ব্যাপক। আমরা যে কোন কাজই করি না  কেন  সেখানেই সম্মুখীন হতে হবে এই ভাষাটির। আর তাই ইংরেজী ভাষার গুরুত্ব বলে শেষ করার নয়। যে বিষয়গুলো উল্লেখ না করলেই নয়, আমি শুধু সেই বিষয়গুলো নিচে উল্লেখ করবো ।

যে কেন ইংরেজি শেখা প্রয়োজন? আসুন জেনে নেয়া যাক কোন বিষয়গুলোর কারণে আমাদের ইংরেজি শেখার প্রয়োজন।

  • আপনি যদি বিদেশে লেখাপড়া করতে চান, তাহলে আপনার ইংরেজী জানা আবশ্যক। আর তাই এক্ষেত্রে আপনার ইংরেজি শেখার গুরুত্ব অপরিসীম।
  •  যদি বিদেশে ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা করতে চান, তাহলেও আপনাকে ইংরেজি জানতে হবে । কারণ তাদের সাথে ব্যবসা বাণিজ্য পরিচালনা করার জন্য আপনার কথাবার্তা বলতে হবে, আর কথাবার্তা বলার একমাত্র ভাষা হচ্ছে ইংরেজি।
  •  যদি একজন দক্ষ কর্মী হন অথবা চাকরিজীবী হন, এবং কর্মের কারণে অথবা চাকরির কারণে বিদেশ যেতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে ইংরেজি ভাষা শিখতে হবে। কারণ এই ভাষার মাধ্যমে আপনি নিজের কাজ সম্পর্কে জানতে পারবেন, এবং অপরকে আপনার কাজ সম্পর্কে বুঝাতে পারবেন।
  • লেখাপড়ার ক্ষেত্রে বা যে কোন ধরনের বড় ডিগ্রী নেওয়ার ক্ষেত্রে। এখানে বলে রাখা ভাল, সকল ধরনের উচ্চতর ডিগ্রির ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই ইংলিশ জানতে হবে। কারণ সেখানে দেখা যাবে আপনার বেশিরভাগই ভালো মানের বই ইংরেজিতে লেখা। আপনি ইংরেজি না জানার কারণে সেগুলো পড়তে পারবেন না। এক্ষেত্রে আপনার জ্ঞানের অপূর্ণতা থেকে যাবে।
  • কম্পিউটার চালনা, ইন্টারনেট পরিচালনা ও ইলেকট্রিক  যন্ত্রপাতি সম্পর্কে ভালোমতো ধারণা পেতে চাইলে ইংরেজি জানা প্রয়োজন। কারণ এদের নাম ও বিন্তারিত বর্ণনা  ইংরেজিতে লেখা।

ইংরেজি শেখার প্রথম ধাপ

যেহেতু ইংরেজি আমাদের মাতৃভাষা নয়। তাই ইংরেজি ভাষার সাথে আমরা ছোটবেলা থেকে পরিচিত নাই। যদিও আমরা ছোটবেলা থেকে স্কুল গুলোতে ইংরেজি ভাষা পড়ে আসছি, কিন্তু সেটা শুধু পরীক্ষার জন্য পড়ে এসেছি। সেটা আমাদের ভাষা শিক্ষার জন্য ছিল না। এখন যেহেতু আমি ইংরেজি ভাষা টাকে শিখতে চাই, তাই এটাকে আমরা যদি কয়েকটি ধাপে সাজিয়ে নেই ।

তাহলে এই ভাষাটা শেখা আমাদের জন্য খুবই সহজ হবে। তাই আমি আজকে শুধু আপনাদের ইংরেজি শেখার প্রথম ধাপ নিয়ে বলবো।  ইংরেজি শেখার প্রথম ধাপ কি হতে পারে? আমি আপনার সুবিধার জন্য বলতেছি আগে আপনি নিজে নিজেকে প্রশ্ন করুন, এবং নিজের কাছে আপনি পরীক্ষা দিন, আপনি আসলে ইংরেজি ভাষায়টা কতটুকু জানেন।

সেখানে আপনি চারটা বিষয়ের উপর নিজের পরীক্ষা নিতে পারেন।

  •  আপনি যে ইংরেজি শুনছেন, সেই শুনার মাধ্যমে আপনি কতটুকু বা কত ভাগ বুঝতে পারছেন?
  •  কতটুকু শুদ্ধভাবে ইংলিশ বলতে পারেন?
  • একটি ইংরেজি লেখা পড়ে দেখবেন এবং সেখান থেকে বুঝার চেষ্টা করবেন আপনি কত ভাগ ভালবাবে পড়দে পারেন।
  •  একটি বিষয়ের উপরে লিখে দেখেন যে, আপনি কতটুকু নির্ভুলভাবে লিখতে পারেন।

এভাবে আপনার ওপর  ১০০ নম্বর এর উপর একটি পরীক্ষা নিয়ে এবার  এই চারটা বিষয়টাকে যোগ করে দেখেন। আপনার ইংলিশের অগ্রগতি কতটুকু। এটাই হবে আপনার ইংরেজি শেখার প্রথম ধাপ। এখান থেকে আপনি আপনার সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারনা নিতে পারবেন। কোন বিষয়ের উপরে আপনার গুরুত্ব বেশি দেওয়া প্রয়োজন?

কোন বিষয়ের উপরে আপনি  তুলনামূলক কম গুরত্ব দেবেন। এভাবে ধাপে ধাপে আপনি ইংলিশ শুরু করতে পারেন। আর আপনার এই পরীক্ষা নেওয়া   মাধ্যমেই  আপনার  ইংলিশ শেখার প্রথম ধাপ সম্পন্ন হবে। এর সবচেয়ে ভাল উদাহরণ ইংরেজিতে একটি কথা আছে  ওয়েল প্রিপারেশন ইজ এ হাফ ডান।

ইংরেজি শেখার উপায়/ ইংরেজি শেখার সহজ টিপস/তাড়াতাড়ি ইংরেজি শেখার উপায়

ইংরেজি ভাষা শিক্ষার মাধ্যমের শেষ নেই। আমরা যারা ইংরেজি এই ভাষাটি শিখতে চাই তাদের জন্য একটি কথা হলো আপনি ইংরেজি ভাষা টাকে শিখতে পেরেছেন কিনা ? সেটাই হচ্ছে আসল কথা। আপনার কাছে যেই মাধ্যমটি সহজ মনে হয়, সেটাই আপনি ব্যবহার করে ইংরেজি ভাষা শিখতে পারেন।

কারণ আমাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে ইংরেজি ভাষা শেখা। আর তাই ইংরেজী ভাষা শিক্ষা দেওয়ার সময়, অনেকেই অনেক রকমের মাধ্যমের কথা বলে থাকেন। একেকজন একেক রকমের উপায় বলে থাকেন। আমি মূলত নিচে চারটি মূল বিষয়ের কথা উল্লেখ করব। যে চারটি মূল বিষয় আপনার ইংরেজীর চারটি দক্ষতার সাথে সম্পর্কিত ।

আপনি যতভাবেই ইংরেজি শেখেন না কেন এর চারটি আপনার জন্য কার্যকরী উপায় বলে আমার কাছে মনে হয়েছে। তাই চলুন সেগুলো নিম্নে বিস্তারিতভাবে বর্ণনা করবো যে আপনি কিভাবে এই চারটি মাধ্যমিকে কাজে লাগিয়ে আপনার ইংরেজি শেখাকে আরো সহজ করতে পারবেন।

ইংরেজি শোনার অভ্যাস গড়ে তোলা

এই বিষয়টা আমি একটু বিস্তারিতভাবে বলব। আপনারা একটু ধৈর্য্য সহকারে বিষয়টি বুঝার চেষ্টা করুন। আমরা যখন ছোট ছিলাম তখন কিভাবে আমরা কথা শিখেছি, অবশ্যই আমরা কোন লেখাপড়া করে শিখিনি। তখন আমরা যা কিছু শিখেছি শিখেছি তা শুধু শুনে শুনেই শেখা। পরবর্তীতে সেই কথা গুলো আমরা বলার চেষ্টা করেছি।

আর এর জন্য আপনি লক্ষ করবেন যখন ছোট বাচ্চা প্রথম কথা বলে তার কথা সম্পূর্ণ উচ্চারিত হয় না । এর প্রধান কারণ তখন তার শেখার সময় ঠিক একই রকম, যেহেতু  ইংরেজি আমাদের মাতৃভাষা নয়, তাই আমরা যদি প্রচুর ইংরেজি না শুনি তাহলে আমাদের কাছে ইংরেজিটা জটিল মনে হবে। প্রথমদিকে হয়তোবা আপনি কিছুই বুঝতে পারবেন না।

তারপরও আমি আপনাকে বলব আপনি ইংরেজি সবসময় শুনতে থাকুন। দেখবেন এক সময় আপনার কাছে এই ভাষাটি পরিচিত মনে হবে। যখন একই রকমের শব্দ আপনি কয়েকবার শুনবেন তখন সেটা আপনার মেমোরিতে স্থায়ী রূপ নিবে। এক সময় সেটা আপনার দীর্ঘ সময় মনে থাকবে।

আর এভাবেই দেখবেন আস্তে আস্তে  আপনি শব্দের  সাথে পরিচিত হয়ে গেছেন। কিছুদিন যাওয়ার পরে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার অগ্রগতি। এক্ষেত্রে আপনি বিভিন্ন মাধ্যমের সহযোগিতা নিতে পারেন। আর তা হলো

  •  বিভিন্ন ইংলিশ টিভি শো  দেতে পারেন এতে করে  আমাদের একদিকে যেমন  শুনার  কাজ হবে অন্য দিকে অন্যদিকে দেখার কাজ হয়ে যাচ্ছে । এতে করে আমাদের মুখস্থ আরও তাড়াতাড়ি হবে।
  • আপনি বিভিন্ন ইংলিশ অনুষ্ঠান শুনতে পারেন।
  •  বিবিসি নিউজ দেখতে পারেন।
  • ইংরেজি সিনেমা দেখতে পারেন।
  • ইংরেজিতে খেলা পরিচালনা করে এমন খেলা দেখতে পারেন।
  •  জিওগ্রফি দেখায় এমন টিভি সো দেখতে পারেন।
  • ইউটিউবে অনেক ভিডিও আছে সেগুলো দেখতে পারেন।

 মোটকথা যত ধরনের ইংরেজি আছে আপনার যা পছন্দ হয় বা আপনার পছন্দ অনুযায়ী আপনাকে প্রচুর ইংরেজি শুনতে হবে। এতে করে আপনার ইংরেজি শুনার এবং বুঝার দক্ষতা পরিপূর্ণ হয়ে যাবে। তাই পর্যাপ্ত ইংরেজি শোনার কোন বিকল্প নাই। যদি আপনি তাড়াতাড়ি ইংরেজি শিখতে চান।

সব সময় ইংরেজিতে কথা বলার চেষ্টা করা

ভয় এবং লজ্জা এ দুটোই এক সাথে কাজ করে যখন আমরা ইংরেজিতে কথা বলতে চাই। আমরা আজই ইংরেজিতে কথা বলা শুরু করে দিবো এটাই যেন সবচেয়ে জীবনের বড় বাধা। আর এই বাধাঁকে উপেক্ষা করতে না পেরে অনেকেই ইংরেজি শিখা থেকে দূরে সরে গেছেন। কারণ আমাদের ভয় এবং লজ্জার কারনে শিখতে পারি না ইংরেজি।

এক্ষেত্রে আপনাদের জন্য মূলমন্ত্র হচ্ছে ভয় কে জয় করা আর নিজেকে নির্লজ্জ বানানো। তবেই আপনার দ্বারা ইংরেজি শেখা সম্ভব হবে। আর তা যদি সম্ভব না হয়, তাহলে আপনি কখনোই ইংরেজি শিখতে পারবেন না । আর তাই আপনি এই দুটোকে পরিত্যাগ করে আজ থেকে শুরু করে দেন ইংরেজি বলার।

সে ক্ষেত্রে আপনি বেশ কিছু মাধ্যম ব্যবহার করতে পারবেন। যে মাধ্যমগুলো খুবই কর্যকরী যা নিচে উপস্থাপন করা হলো।

  • ইংরেজিতে কথা বলার জন্য পার্টনার তৈরি করা বা গ্রুপ তৈরি করা। এখানে আপনার কোন ধরনের ভয় হবে না, কারণ আপনি জানেন, এখানে যারা আপনার সাথে ইংরেজিতে কথা বলছে তারা সবাই আপনার মত ইংরেজি শিখছে। এখানে  এজন্য আপনি আপনার মনের ভাব খুবই সহজে প্রকাশ করতে পারবেন। এভাবে দেখবেন আস্তে আস্তে আপনার ভয় এবং লজ্জা দুটোরই কেটে গেছে।
  • আয়নার সামনে কথা বলা। আপনি আয়নার সামনে কথা বলবেন, এবং মনে মনে সামনে আপনি নিজেকে উপস্থাপন করবেন। কথা চালিয়ে যাবেন এভাবে দেখবেন কথা বলার স্পিড বেড়ে গেছে।
  • কথাগুলোকে রেকর্ড করতে পারেন ।  পরবর্তীতে সেগুলো শুনে ভুল গুলো শুধরে নিন এভাবে বার বার করতে থাকুন দেখবেন আস্তে আস্তে আপনার উন্নতি হচ্ছে।
  • বিভিন্ন ইংরেজি শিখার এ্যাপস আছে। যার মাধ্যমে আপনি ইংরেজি শিখতে পারেন। এখানে আপনি ভুল করলে সাথে সাথে সেই ভুলটাকে ঠিক করে দিবে।

বেশি বেশি ইংরেজি পড়ার অভ্যাস তৈরি করা

ইংরেজি শেখার এটি একটি অন্যতম মাধ্যম । আপনি যখন একটি লিখা বারবার পড়বেন, একদিকে যেমন আপনার বলার কাজ হয়ে যাচ্ছে ,অন্যদিকে আপনার শেখার কাজ হয়ে যাচ্ছে। তাই ইংরেজি শিখার জন্য ইংরেজি বেশি বেশি পড়ার কোন বিকল্প নাই। আপনি যদি ভাল ইংরেজি শিখতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে বেশি করে ইংরেজি পড়তে হবে ।এজন্য আপনি নিচের মাধ্যমগুলোর সহযোগিতা নিতে পারেন।

  • বিভিন্ন ইংরেজি ম্যাগাজিন পড়তে পারেন।
  • ইংরেজি পত্রিকা পড়তে পারেন ।
  • ইংরেজি অনলাইন পত্রিকা পড়তে পারেন ।
  •  বিভিন্ন গল্পের বই পড়তে পারেন।
  • বিভিন্ন লেখকের ইংরেজি লেখা পড়তে পারেন।

মোটকথা হাতের কাছে যেই লেখাই ইংরেজিতে পাবেন তাই পড়া শুরু করে দিন এবং এখান থেকে যে নতুন নতুন শব্দ পাবেন তা জানার চেষ্টা করুন তাহলেই দেখবেন এভাবে  আপনার ইংরেজি শেখা সহজ হয়ে গেছে।

ইংরেজি লেখার অভ্যাস তৈরি করা

ইংরেজি লেখাটাকে অনেকেই বিরক্ত কর হিসেবে বিবেচনা করে থাকে। লেখাটাকে বিরক্তকর মনে করে অনেকেই লিখতে চায় না। যদিও একটু লিখে সেটা শুধু প্রয়োজনের কারণে। ইংরেজি শিক্ষার উদ্দেশ্য করে কেউ ইংরেজি লিখিনা।  আর তাই আমি আপনাদেরকে পরামর্শ দিব, আপনি যদি ইংরেজি জানতে, চান তাহলে প্রচুর ইংরেজি লেখার কোন বিকল্প নাই।

কারন আপনি যখন একটি ভাষাকে ভালভাবে জানবেন  বা বুঝতে পারবেন তার  চূড়ান্ত রূপ হচ্ছে লিখে কাউকে বোঝানো। এটা দ্বারা প্রমানিত হয় যে আপনি ভাষাটি ভালোভাবে জানেন। আর তাই আপনার লেখার দক্ষতা অর্জনের জন্য সবসময় ইংরেজি লিখতে হবে।

ইংরেজি গ্রামার শেখা কতটুকু দরকার?

আপনি যদি একটি ভাষা শেখেন, আর সেই ভাষার নিয়মকানুন না জানেন তাহলে বিষয়টা কেমন দাঁড়ালো ? ধরেন আপনি রাস্তায় গাড়ি চালাবেন, আর রাস্তার নিয়ম মানবেন না, তাহলে কেমন হবে? নিশ্চিত আপনি অ্যাক্সিডেন্টের মুখোমুখি হবেন। ঠিক তেমনি আপনি যদি ইংরেজি শিখার সময় এর গ্রামারের বিষয়গুলো না জানেন তাহলেও আমরা ইংরেজিতে  অ্যাক্সিডেন্টে করবো।

আর তার জন্যই গ্রামর এর নিয়ম গুলো শেখা একান্তই প্রয়োজন। আপনার ইংরেজী দক্ষতা অর্জন করার জন্য  গ্রামার  একান্ত অপরিহার্য একটি বিষয়। তবে একটি কথা বলে রাখি, সেটা হলো আপনি যখন প্রথমেই  ইংরেজি শিখতে যাবেন, সেই সময় শুধু গ্রামার নিয়ে বাড়াবাড়ি করবেন না। অর্থাৎ আগে আপনি গ্রামার দিয়ে শুরু করবেন না।

আপনি আগে সাধারণভাবে ইংরেজি শিখার চেষ্টা করবেন। যখন আপনি ইংরেজিটা একটু ভালমত বুঝতে পারবেন তখন আপনি গ্রামার এর খুঁটিনাটি বিষয়গুলো ভালভাবে জেনে নেবেন । এভাবেই  ইংরেজি শিখলে আপনার জন্য ভালো হবে। আমি যদি একটি উদাহরণ দেই, ধরুন আমরা ছোটবেলায়  কথা  শিখেছি তখন কিন্তু কোন প্রকার গ্রামার শিখিনি।

কিন্তু আমরা বাংলা ভাষাটাকে সহজে শিখতে পেরেছি। ঠিক একই পদ্ধতি অনুসরণ করে আগে ইংরেজি শিখবেন। পরবর্তীতে গ্রামারের নিয়ম কানুন জেনে নিবেন।  গ্রামার শেখা একান্ত প্রয়োজন

ইংরেজি শেখার সহজ উপায় pdf

ইংরেজি শিক্ষার মাধ্যমের যেমন শেষ নেই, তেমন শেষ নেই অনলাইনেও। আপনি বিভিন্নভাবে আপনার ইংরেজি শিখে নিতে পারেন। এই শেখার কাজকে আরো সহজ করার জন্য বিভিন্ন লেখক তাদের লেখা বই কে ইন্টারনেটের মাধ্যমে pdf আকারে আপলোড দিয়ে রেখেছে যে খান থেকে আপনি ইচ্ছে করলেই ডাউনলোড নিয়ে আপনি সহজেই ঘরে বসে ইংরেজি শিখতে পারবেন।

এদের মদ্যে উল্লেখ যোগ্য হলে –

  • খান ম্যাথড pdf ।
  • সাইফুরস pdf।
  • স্পোকেন ইংলিশ pdf ইত্যাদি।

ইংরেজি শেখার বাংলা ওয়েবসাইট

বর্তমান যেহেতু ইন্টারনেটের যুগ। বিশেষ করে এই কোভিট-১৯  এর কারণে আমরা ঘরে বসেই অনেক কিছু শিখতে হচ্ছে। আর তাই ইংরেজি শেখার ক্ষেত্রে কেন পিছিয়ে থাকবো। আর এর জন্য তৈরী হয়েছে বিভিন্ন  বাংলা  ওয়েবসাইট যারা আপনার ইংরেজি শিক্ষা দিয়ে থাকে। ইংরেজি শিক্ষার এই ওয়েবসাইট গুলো  আপনি ইচ্ছে করলে ইন্টারনেটে সার্চ দিয়ে আপনি ব্যবহার করতে পারেন।

এরকম বাংলায় মিডিয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার ইংরেজি শিখতে পারেন খুবই সহজে। এক্ষেত্রে বাংলায় ইংরেজি শেখার সুবিধা হচ্ছে , আমরা প্রথমে যারা ইংরেজি শিখতে চাই, যদি সবগুলো কথা ইংরেজিতে শুনি তাহলে বুঝতে অসুবিধা হয়। আর এজন্য আমরা খুঁজি বাংলায় কিভাবে ইংরেজি শেখা যায়। মূলত তাদের উদ্দেশ্যে বাংলা  ওয়েবসাইট গুলোর সৃষ্টি হয়েছে। যার মাধ্যমে আপনি খুবই তাড়াতাড়ি  শিখতে পারবেন ইংরেজি।

ইংরেজি শেখার সহজ উপায় বই

বর্তমানে ইংরেজি শেখার অনেক গুলো বই বের হয়েছে।  সেই বইয়ের সাথে লেখোকের ইউটিউব ভিডিও পাওয়া যায় এই দুইটাকে একত্রিত করে আপনি যদি আপনার ইংরেজি শিখার চর্চা শুরু করেন, তাহলে খুবই সহজেই আপনি ইংরেজি শিখতে পারবেন। কারণ আপনি যদি আপনার সামনে বই নিয়ে ভিডিও দেখেন সেই ক্ষেত্রে আপনার ইংরেজি শেখা অনেক সহজ হবে। এর জন্য আপনি ইউটিউবে গিয়ে ইংরেজি শেখার সহজ উপায় লিখে সার্চ দিলে সকল ঠিকানা পেয়ে যাবেন।

ইংরেজি শেখার কোর্স

বর্তমানে বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে অনলাইনভিত্তিক ইংরেজি শিক্ষার বিভিন্ন কোর্স শুরু হয়েছে। সেখানে স্বল্পমেয়াদী থেকে দীর্ঘমেয়াদী কোর্স আছে । এছাড়াও আপনার বেসিক লেভেল থেকে শুরু করে উচ্চতর লেভেল পর্যন্ত ইংরেজি শেখার সুযোগ আছে। আপনি ইচ্ছে করলে ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ইংরেজি শিক্ষার কোর্স গ্রহণ করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনি শুধু আপনার কোর্সের নাম লিখে অনলাইনে সার্চ দেবেন। তাহলেই আপনার কাঙ্খিত ইংরেজি শেখার কোর্সটি পেয়ে যাবেন আর যে হয়ে যেতে পারে আপনার ইংরেজি শিক্ষা গ্রহণের মাধ্যমে।

ইংরেজি শেখার উপায় ভিডিও

এই ভাষা শেখার অন্যতম একটি মাধ্যম হতে পারে  এই ভিডিও দেখার মাধ্যমে ইংরেজি শেখা। বর্তমানে বিভিন্ন শিক্ষামূলক ভিডিও ইউটিউবে অনেকেই ইংরেজি শেখার জন্য দিয়ে থাকে। তাই আপনি এখান থেকে ভিডিও ডাউলোড করে  ইংরেজি শিখতে পারেন। আর এর  জন্য সরাসরি অনলাইনে ভিডিও কে ব্যবহার করে আপনার শেখার কাজকে সহজ করে নিতে পারেন।

ইংরেজি শেখার সহজ উপায় অ্যাপস

বর্তমান সময়ে বেশ কিছু জনপ্রিয় অ্যাপস আছে।  যে অ্যাপস গুলোর মাধ্যমে আপনি সহজেই ইংরেজি শিখতে পারবেন। আপনার ইংরেজি কতটুকু শেখা হয়েছে তা যাচাই করে নিতে পারবেন এই অ্যাপস দ্বারা। আর আপনি নিত্যনতুন ভাবে জানতে পারবেন ইংরেজিকে। এই অ্যাপস দিয়ে গঠন করতে পারবেন বিভিন্ন বাক্য ও শিখতে পারবেন নতুন নতুন শব্দ।

এসব নিয়েই তৈরি হয়েছে আপনার বিভিন্ন ধরনের নিত্য নতুন অ্যাপস। নিম্নে কয়েকটি অ্যাপস এর নাম তুলে ধরা হলো । যে অ্যাপস গুলো দিয়ে আপনি সহজেই ইংরেজি শিখতে পারবেন। আর এক্ষেত্রে আপনি আপনার হাতে থাকা মুঠোফোন ব্যবহার করতে পারবেন ইংরেজি শিক্ষার মাধ্যম হিসেবে।

  • Babbel
  • Quizlet
  • Learn English Grammar
  • English with Lingualeo
  • Busuu
  • Memrise
  • Practise English Grammar
  • Magoosh Vocabulary Builder
  • PowerVocab

(কৃষি বিষয়ক বিভিন্ন ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন)

কোন প্রকার ইংরেজি শিখবো ?

অনেকের মনে প্রশ্ন জাগে কোন প্রকারের ইংলিশ শিখবো ? আমেরিকান ইংলিশ নাকি ব্রিটিশ ইংলিশ? তাদের উদ্দেশ্যে বলতেছি আপনি কোন উদ্দেশ্য নিয়ে ইংরেজি শিখতে চাচ্ছেন সেটা কেই প্রাধান্য দিন। আপনি যদি বিদেশে যাওয়ার জন্য ইংরেজি শিখতে চান তবে সেই দেশে যে দেশের ইংলিশ প্রচলিত সেই দেশের ইংলিশ শিখতে পারেন।

এক্ষেত্রে ধরাবাঁধা কোনো নিয়ম নেই। তবে বর্তমান যেহেতু আমেরিকানদের প্রভাব বেশি, তাই বর্তমানে আমেরিকান ইংলিশ অনেকেই প্রাধান্য দিয়ে থাকে। এক্ষেত্রে আপনার উদ্দেশ্য এবং লক্ষ্যকে সামনে রেখে আপনার ইংরেজি শেখা উচিত।

শেষকথা:

আশাকরি আপনাদের উপরের টিপসগুলো ভালো লেগেছে। যদি আপনি সবগুলো বিষয় ভালোভাবে পড়ে থাকেন, তবে আমি নিশ্চিত আপনি ইংলিশ ইংরেজি শিখতে পারবেন। আপনার দ্বারা সেটা সম্ভব হবে। কারণ আমার এই লম্বা লেখা টি আপনি যেহেতু ধৈর্য সহকারে পড়েছেন, আপনার মধ্যে ইংরেজি শেখার গুনটি আছে। এখন আপনি ইংরেজি শেখা শুরু করে দিন।

এক্ষেত্রে আপনি যদি কোনো ধরনের সমস্যায় পড়েন, তবে অবশ্যই আমাদেরকে কমেন্টে শোনেন লিখবেন। কোন ধরনের সমস্যা হচ্ছে ইংরেজি শিক্ষার ক্ষেত্রে । আমি আর কথা বাড়াবো না । যদি আপনার লেখাটি ভালো লেগে থাকে  তবে আপনার কাছে আমার রিকোয়েস্ট লেখাটির বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দিবেন। যেন সবাই এ থেকে উপকৃত হতে পারে।আপনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে শেষ করছি।

আরো পড়ুন:

. সুন্দর কথা বলার কৌশল।

২. গুগলের জানা অজানা নানান তথ্য

৩. স্কুল লাইভ নিয়ে স্ট্যাটাস

৪. গুগলে মানুষ কোন বিষয়ে বেশি সার্চ করে।

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.